আগৈলঝাড়ায় ব্যবসায়ীর বাড়ি ঘর ভাঙচুর। লুটপাট ও শ্লীলতাহানীর অভিযোগ

0
10

মঞ্জুর লিটন বরিশাল জেলা প্রতিনিধিঃ
বরিশালের আগৈলঝাড়া উপজেলার গৈলা বাজারের ব্যবসায়ী মোস্তফা মোল্লার বাড়িতে হামলা চালিয়ে বাড়ির টিনের বেড়া ভাঙচুর ও মোস্তফা মোল্লার স্ত্রী আফরোজা বেগম ও ছোট ভাইয়ের বউ বৃষ্টি বেগম কে মারধরের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায় আগৈলঝাড়া উপজেলার গৈলা ইউনিয়নের পূর্ব সুজন কাঠি নিবাসী আবু বক্কার মোল্লার সাথে মোস্তফা মোল্লার জমিজমা নিয়ে বিবাদের জের ধরে আজ সকাল ১০.৩০ ঘটিকায় প্রতিবেশী আবু বক্কার মোল্লা এর নেতৃত্বে ১১/১২ জন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র শাবল, দা, কুড়াল, লোহার রড নিয়ে মোস্তফা মোল্লার পরিবারের ওপর হামলা চালিয়ে বাড়ির চারপাশের টিনের বেড়া দা দিয়ে কুপিয়ে ভাঙচুর করে। এবং বসত ঘরের ক্ষতিসাধন করে।

উক্ত সময় মোস্তফা মোল্লা বাড়িতে অবস্থান না করায় তার স্ত্রী আফরোজা বেগম (৩৬) বাধা দিলে তাকে রট দিয়ে আঘাত করে এবং বিভিন্ন জায়গায় নীলা ফুলা জখম করেন। এই সময় মোস্তফার ছোট ভাইয়ের স্ত্রী বাধা প্রদান করলে তার ওপরও হামলা চালানো হয় এবং লোহার রড দিয়ে আঘাত করে তার বিভিন্ন স্থানে নীলা ফুলা জখম করে।
এ ব্যাপারে গোলাম মোস্তফা বাদী হয়ে আগৈলঝাড়া থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায় আগৈলঝাড়া উপজেলার পূর্ব সুজনকাঠী নিবাসী মোস্তফা মোল্লার সাথে প্রতিবেশী আবুবক্কার মোল্লার জমিজমা নিয়ে দীর্ঘদিন যাবৎ বিরোধ চলে আসছিল এরই ধারাবাহিকতায় আজ সকাল ১০.৩০ ঘটিকায় ১. আবু বক্কার মোল্লা (৬৫) পিতা-মৃত মুনসুর আলী মোল্লা ২. আরিফ মোল্লা (৩২) ৩. শরিফ মোল্লা(২৮) ৪. রায়হান মোল্লা, ৫. রাহাত মোল্লা ৬. অজুফা বেগম ৭. মিম আক্তার স্বর্ণা (১৬)৮. ফজলুল হক হাওলাদার ৯. আমেনা বেগম ১০. মাহফুজ হাওলাদার ১১. হানিফ হাওলাদারসহ অজ্ঞাত ব্যক্তিগণ মোস্তফা মোল্লার বাড়ির টিনের তৈরি চারপাশের সীমানা বেড়া ভেঙে ফেলে। দা, রড, শাবল দ্বারা টিনের তৈরি বেড়াগুলি মুহুর্তের মধ্যে খন্ড-বিখন্ড করে ফেলে তখন আফরোজা বেগম ও বৃষ্টি বেগম বাধা প্রদান করলে তাদের অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন। বেধড়ক মারধর করে এবং রড দ্বারা আঘাত করে কিল ঘুষি দিয়ে বিভিন্ন স্থানে নিলা ফুলা জখম করেন। তার পরনের বস্ত্র টানাহ্যাঁচড়া করে শ্লীলতাহানী করে। ভিকটিম আফরোজা বেগম ও বৃষ্টি বেগম আত্মরক্ষার জন্য ঘরে ঢুকে গেলে বসতঘর ভাঙচুর করার চেষ্টা করে এবং ঘরে ঢুকে ঘরে থাকা নগদ ৫০,০০০ ও ২টি স্বর্ণের চেইন নিয়ে যায়। এলাকাবাসী ভিকটিম আফরোজা ও বৃষ্টি বেগমকে উদ্ধার করে স্থানীয় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য নিয়ে যান।

ঘটনাস্থল আগৈলঝাড়া থানার এস আই আলী হোসেন সহ পুলিশ ফোর্স পরিদর্শন করেন।

মোস্তফা মোল্লা সাংবাদিকদের জানান দীর্ঘদিন যাবত প্রতিপক্ষ তাহাদের বিভিন্ন প্রকার হুমকি-ধমকি দিয়ে আসছিল। এরই ধারাবাহিকতায় আজ তাহার বসতঘর ও টিনের বেড়া ভাঙচুর করেন এবং তার স্ত্রী ও ছোট ভাইয়ের স্ত্রীর উপর হামলা চালায়। এ ব্যাপারে আইন প্রয়োগকারী সংস্থার নিকট সুষ্ঠু বিচার দাবি করেন।