advertisement

আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ ও রোকেয়া দিবসে জামালপুর জেলায় জয়িতাদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত 

ফারিয়াজ ফাহিম 
স্বাধীন নিউজ, জামালপুর প্রতিনিধি।
শেখ হাসিনার বারতা
নারী-পুরুষ সমতা, জয়িতা তোমরাই বাংলাদেশের বাতিঘর এই শ্লোগানে আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ ও বেগম রোকেয়া দিবস ২০২১ উদযাপন উপলক্ষে জামালপুর জেলা প্রশাসন ও জেলা মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের যৌথ আয়োজন এবং স্বাবলম্বী উন্নয়ন সমিতির জামালপুরের আস্থা প্রকল্প, জাতীয় মহিলা সংস্থা, তরঙ্গ মহিলা কল্যাণ সমিতির সহযোগিতায় জয়িতাদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।
এ উপলক্ষে ‘নারী নির্যাতন বন্ধ করি কমলা রঙের বিশ্ব গড়ি’ প্রতিপাদ্যে ৯ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার সকালে জামালপুর জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে এক আলোচনা সভায় জামালপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক এর সভাপতিত্বে এবং  উন্নয়ন সংঘের পরিচালক জাহাঙ্গীর সেলিমের সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন,  জামালপুরের জেলা প্রশাসক মুর্শেদা জামান। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর জামালপুর জেলার উপ-পরিচালক কামরুন্নাহার। জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ঝাউগড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এবং জাতীয় মহিলা সংস্থা জামালপুরের চেয়ারম্যান  আঞ্জুমনোয়ারা বেগম হেনা, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদিকা হাসিনা আকাশ,  দুর্বার নেটওয়ার্ক জামালপুর জেলার সভাপতি এডভোকেট শামীম আরা, বাংলাদেশ প্রেসক্লাব জামালপুর জেলা শাখার আহ্বায়ক সৈয়দ মুনিরুল হক নোবেল প্রমুখ।
এসময় জয়িতাদের মাঝে ক্রেষ্ট, সনদ ও উপহারসামগ্রী তুলে দেয়া হয়।
অনুষ্ঠানে তরঙ্গ মহিলা কল্যাণ সংস্থা, দুর্বার নেটওয়ার্ক জামালপুর জেলা, জাতীয় মহিলা সংস্থা জামালপুর জেলাসহ বিভন্ন নারী সংগঠনের কর্মকর্তা ও সদস্যবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন।
উল্লেখ্য, নারী নির্যাতনের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক প্রতিবাদ দিবস-২০২১ উপলক্ষে যৌন নিপীড়নের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ।  ১৯৬০ সালের ২৫ নভেম্বর ডোমিনিক্যান রিপাবলিকের স্বৈরাচারী সরকার বিরোধী মিরাবেল ভগিনীত্রয়কে সেনা সদস্যরা ধর্ষণ ও হত্যা করে। নারী নির্যাতনের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক প্রতিরোধ গড়ে তোলার জন্য ১৯৮১সালে ল্যাটিন আমেরিকান ও ক্যারিবিয় নারী সম্মেলন এই হত্যাকান্ডকে স্মরণ করে ২৫ নভেম্বরকে নারী নির্যাতনের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক প্রতিবাদ দিবস ঘোষণা করে। ১৯৯১ সালে যুক্তরাষ্ট্রের সেন্টার ফর উইমেন্স গ্লোবাল লিডারশীপের এক প্রশিক্ষণে ২৩টি দেশ থেকে আগত অংশগ্রহণকারীগণ নারী নির্যাতন মানবাধিকার লঙ্ঘন-এই চিন্তার ভিত্তিতে ২৫ নভেম্বর থেকে ১০ ডিসেম্বর মানবাধিকার দিবস পর্যন্ত পক্ষকালব্যাপী নারী নির্যাতনের বিরুদ্ধে কর্মসূচি গ্রহণের প্রস্তাব করেন। এই ডাকে সাড়া দিয়ে এ যাবৎ ১৮৭টি দেশে ছয় হাজারের বেশি সংগঠন ১৬দিনব্যাপী নারী নির্যাতনের বিরুদ্ধে বিশ্ব অভিযানে অংশগ্রহণ করে আসছে। বাংলাদেশে নারী নির্যাতনের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক প্রতিবাদ দিবস উদযাপন কমিটি ১৯৯৭ সাল থেকে একেক বছর একেকটি নির্দিষ্ট প্রতিপাদ্য নিয়ে দিবসটি পালন করছে। এবারের প্রতিপাদ্য “যৌন নিপীড়নের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ”। যৌন নিপীড়ন মোকাবেলায় প্রতিরোধ গড়ে তোলার গুরুত্বের প্রতি সবার মনোযোগ আকর্ষণ করতে এবং তৎপরতা বৃদ্ধি করতে এই প্রতিপাদ্য নির্বাচন করা হয়েছে।।
spot_imgspot_imgspot_imgspot_img
এই বিভাগের আরও খবর
- Advertisment -spot_img

সর্বাধিক পঠিত