ইতিহাসের আজকের এই দিনে যা ঘটেছিল

স্বাধীন নিউজ ডেস্ক!

আজ ২২ ডিসেম্বর। একটি দিন ২৪ ঘণ্টা। ১৪৪০ মিনিট। ৮৬ হাজার ৪০০ সেকেন্ড। সময়ের হিসেবে অতি অল্প মনে হলেও একটি ঘটনার জন্য তা যথেষ্ট। ইতিহাস ঘেটে দেখা যায় বছরের প্রতিটি দিনে ঘটেছে অনেক উল্লেখযোগ্য ঘটনা।

ইতিহাসের কৌতুহল উদ্দীপক ও উল্লেখযোগ্য ঘটনাগুলো জেনে নেবো। আসুন আজকের দিনে ঘটে যাওয়া উল্লেখযোগ্য কিছু বিষয়-একনজরে দেখে নিই।

ইতিহাসের আজকের এই দিনে কী কী ঘটেছিল, কে কে জন্ম নিয়েছিলেন ও মৃত্যুবরণ করেছিলেন——-

ইতিহাসের পাতায় আজকের দিনের ঘটনাবলী—-

১৯৭১ – কুর্ট ওয়াল্ডহেইম জাতিসংঘের মহাসচিব নির্বাচিত।

১৯৭১ – বাংলাদেশ গণপ্রজাতন্ত্র আনুষ্ঠানিকভাবে প্রতিষ্ঠিত হয়।

১৯৭১ – বাংলাদেশের মন্ত্রী পরিষদ মুজিবনগর থেকে ঢাকায় স্থানান্তরিত।

প্রধানমন্ত্রী হন তাজউদ্দিন আহমদ।

১৯৭২ – বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কর্তৃক শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিস্তম্ভের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন।

১৯৮৬ – সিলেটের হরিপুরে তেল খনি আবিষ্কার।

১৯৮৮ – স্কটল্যান্ডের লকারবিতে প্যান আমেরিকান জাম্বো জেট বিমান বিধ্বস্ত। ২৫৯ জন নিহত।

১৯৮৯ – রুমানিয়ার রাষ্ট্রপতি চসেস্কু ক্ষমতাচ্যুত হন।

১৯৯৩ – দক্ষিণ আফ্রিকায় বর্ণ বৈষম্য বিলোপ করে নতুন সংবিধান অনুমোদন।

১৯৯৫ – ইসরাইলি বাহিনীর বেথলেহেম ত্যাগ। প্যালেস্টাইনি শাসন কায়েম।

১৯৩৭ – চালু হয় লিংকন টানেল।

১৯৩৯ – জার্মানিতে ট্রেন দুর্ঘটনায় ১২৫ জনের মৃত্যু হয়।

১৯৪২ – কলকাতায় জার্মানিদের বিমান আক্রমণ।

১৯৪৪ – ভিয়েতনাম পিপলস পার্টি প্রতিষ্ঠিত।

১৯৫৬ – ফ্রান্স এবং বৃটেন, মিশরের পোর্ট সাঈদ বন্দর থেকে তাদের ৫০ দিনের দখলদারিত্বের পরিসমাপ্তি ঘটায় এবং তাদের সেনাদেরকে মিশর থেকে সরিয়ে নেয়।

১৯৫৮ – দ্য গোল্লে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হন।

১৯৬৫ – বেলজিয়াম সরকার ছয়টি কয়লাখনি বন্ধ করে দেয়।

১৬৯৩ – ইতালির দক্ষিণে অবস্থিত সিসিলা দ্বীপে ভয়াবহ ভূমিকম্প হয়।

১৭১৬ – ইংল্যান্ডে প্রথম মুকাভিনয় অনুষ্ঠিত।

১৮১০ – ইংলিশ ফ্রিগেড মিনোটর ডুবে যায়।

১৮৫১ – ভারতে প্রথম মালবাহী ট্রেন চালু হয়।

১৮৬৯ – মহারানী ভিক্টোরিয়ার দ্বিতীয় পুত্র প্রিন্স আলফ্রেডের কলকাতায় আগমন।

২০০৩ – ২২ শে ডিসেম্বর তারিখে সাঁওতালি ভাষা সাংবিধানিক স্বীকৃতি লাভ করে।

আজ যাদের জন্মদিন—-

১৮৫৭ – বাঙালি চিকিৎসক, স্বাধীনতা সংগ্রামী এবং লেখক সুন্দরীমোহন দাস।

১৮৮৭ – শ্রীনিবাস রামানুজন, প্রতিভাবান ভারতীয় গণিতবিদ।

১৯৪৮ – মেরি আর্চার, ব্রিটিশ বিজ্ঞানী।

১৯৮৩ – জেনিফার হকিংস, মিস ইউনিভার্স ২০০৪।

১১৭৮ – জাপানের সম্রাট আনটুকু।

১৮০৪ – বেঞ্জামিন ডিজরেলি।

১৮৫৩ – সারদা দেবী, ঊনিশ শতকের বিশিষ্ট বাঙালি হিন্দু ধর্মগুরু রামকৃষ্ণ পরমহংসের পত্নী ও সাধনসঙ্গিনী এবং রামকৃষ্ণ মঠ ও মিশনের সংঘজননী।

এই দিনে মৃত্যুবরণ করেন যারা—-

১৯৫৮ – তারকনাথ দাস, বাঙালি, ব্রিটিশ বিরোধী স্বাধীনতা আন্দোলনের বিপ্লবী নেতা এবং আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন বুদ্ধিজীবী।

১৯৬৫ – পল্লীগীতি ও নজরুলগীতির খ্যাতিমান গায়ক গিরীন চক্রবর্তী।

১৯৮৬ – কথাশিল্পী সরদার জয়েন উদ্দীন।

১৫৭২ – ফরাসি চিত্রশিল্পী ফ্রাঁসোয়া কো।

১৬৬৬ – ইতালিয় চিত্রশিল্পী গুয়েরচিনো।

১৬৬৮ – ইংরেজ চিত্রকর স্টিফেন।

১৭৯৭ – রাজা নবকৃষ্ণ দেব,কলকাতার শোভাবাজার রাজ পরিবারের প্রতিষ্ঠাতা ও কলকাতায় প্রথম দুর্গাপূজার সূচনাকারী।

১৮৮০ – ইংরেজ ঔপন্যাসিক,সাংবাদিক, অনুবাদক জর্জ ইলিয়ট।

১৯৮৭ – চীনের দাবা মাস্টার সিয়ে সিয়াসুয়েন।

১৯৯১ – মির্জা নূরুল হুদা, পূর্ব পাকিস্তানের গভর্নর।

১৯৯২ – চট্টগ্রাম যুব বিদ্রোহের ফিল্ড মার্শাল গণেশ ঘোষ।

১৯৯৫ – কমিউনিস্ট নেতা আবদুল হক।

১৯৮৯ – নোবেলজয়ী [১৯৬৯] আইরিশ সাহিত্যিক স্যামুয়েল বেকিট।

দিবস—-

(ক) সশস্র বাহিনী দিবস ভিয়েতনাম।

(খ) মা দিবস ইন্দোনেশিয়া।

(গ) জাতীয় গণিত দিবস, ভারত।

ভারত সরকার ২২ ডিসেম্বরকে জাতীয় গণিত দিবস হিসাবে ঘোষণা করেছে। ভারতের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং ২০১২ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি মাদ্রাজ বিশ্ববিদ্যালয়ে ভারতের প্রতিভাবান গণিতজ্ঞ শ্রীনীবাস রামানুজনের (২২ ডিসেম্বর ১৮৮৭- ২৬ এপ্রিল ১৯২০) ১২৫ তম জন্মবার্ষিকী উদযাপনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এটি ঘোষণা করেছিলেন। এই উপলক্ষে সিং ঘোষণা করেছিলেন যে ২০১২ সালটি জাতীয় গণিত বছর হিসাবে পালিত হবে। সেই থেকে, প্রতি ২২ ডিসেম্বর ভারতের জাতীয় গণিত দিবসটি পালিত হয় ভারতের বিভিন্ন স্কুল এবং বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে অসংখ্য শিক্ষামূলক অনুষ্ঠানের সাথে।

।।তথ্যসূত্র : সংগৃহীত ইন্টারনেট ও উকিপিডিয়া।।

এই ওয়েবসাইটের সকল লেখার দায়ভার লেখকের নিজের, স্বাধীন নিউজ কতৃপক্ষ প্রকাশিত লেখার দায়ভার বহন করে না।
এই বিভাগের আরও খবর
- Advertisment -

সর্বাধিক পঠিত

- Advertisment -