ইসকনকে ‘জঙ্গি’ বলায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা

0
7

ইসমাইল ইমন চট্টগ্রাম মহানগর প্রতিনিধিঃ

সনাতন ধর্মের অনুসারী সংগঠন ইসকনকে ‘জঙ্গি সংগঠন’ বলায় চট্টগ্রামে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে একটি মামলা হয়েছে। মামলায় চট্টগ্রামের সুপরিচিত প্রবর্তক সংঘ পরিচালনা কমিটির দুই কর্মকর্তাকে আসামি করা হয়েছে।

চট্টগ্রামের ইসকন প্রবর্তক শ্রী কৃষ্ণ মন্দিরের সদস্য জুয়েল শীল বাদি হয়ে বৃহস্পতিবার (১৪ জুলাই) নগরীর পাঁচলাইশ থানায় মামলাটি দায়ের করেছেন।

মামলায় আসামি করা হয়েছে- প্রবর্তক সংঘের সাধারণ সম্পাদক তিনকড়ি চক্রবর্তী ও সহ-সভাপতি রনজিত কুমার দে’কে। এছাড়া অজ্ঞাতনামা আরও ৪-৫ জনকে আসামি করা হয়েছে।

পাঁচলাইশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাহিদুল কবীর স্বাধীন নিউজকে বলেন, ‘ইসকনকে জঙ্গি সংগঠন হিসেবে অভিহিত করায় তাদের পক্ষ থেকে একটি মামলা হয়েছে। মামলায় তিনকড়ি চক্রবর্তী ও রনজিত কুমারকে আসামি করা হয়েছে। অজ্ঞাতনামা আরও ৪-৫ জন আসামির তালিকায় আছেন।’

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ২৫ (২), ২৮ (২), ২৯ (১), ৩১ (২) ও ৩৫ ধারায় আসামিদের বিরুদ্ধে মামলার এজাহারে অভিযোগ এনেছেন বাদি।

ইসকনের আইনজীবী শুভাশীষ শর্মা সারাবাংলাকে বলেন, ‘গত ২৬ জুন চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে প্রবর্তক সংঘের পক্ষ থেকে একটি সংবাদ সম্মেলন হয়। সেখানে ইসকনকে জঙ্গি সংগঠন হিসেবে উল্লেখ করা হয়। তাদের এই বক্তব্য ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে ছড়িয়ে পড়ে। পরিকল্পিতভাবে উসকানি দিয়ে অস্থিরতা ‍সৃষ্টির পরিস্থিতি তৈরি করা হয়। এজন্য ইসকন মন্দিরের একজন ব্রহ্মচারী সংক্ষুব্ধ হয়ে মামলা দায়ের করেছেন।’

চট্টগ্রাম নগরীর প্রবর্তক পাহাড় ঘিরে স্কুল, অনাথালয় ও ভূসম্পদ পরিচালনা ও রক্ষণাবেক্ষণ করে প্রবর্তক সংঘ। তাদের কাছ থেকে জায়গা বরাদ্দ নিয়ে সেখানে একটি মন্দির গড়ে তুলেছে আন্তর্জাতিক শ্রীকৃষ্ণ ভাবনামৃত সংঘ (ইসকন)। সম্প্রতি ইসকনের বিরুদ্ধে জায়গা দখলের অভিযোগ ওঠার পর উভয়পক্ষ পাল্টাপাল্টি বক্তব্য-বিবৃতিতে জড়িয়ে পড়ে। উভয়পক্ষ একে অপরের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করে বিভিন্ন অভিযোগ তোলে।