কাপ্তাই পুলিশ মাদক বিরোধী অভিযানে, পুলিশের গাড়ি ভাংচুর ও কাপ্তাই থানায় মামলা।

0
39

স্বাধীন নিউজ ডেস্ক।

কাপ্তাই থানা পুলিশের মাদক বিরোধী অভিযানে  পুলিশের ২ টি মোটরসাইকেল ভাংচুর করেছে মাদকসেবীরা। গত রবিবার (১৬ মে) রাত ৯ টায় কাপ্তাই ফাঁড়ির পুলিশ সদস্যরা কাপ্তাই ইউনিয়নের লকগেইট হতে নতুনবাজার সংলগ্ন আনন্দমেলা মাঠ এবং কার্গোর নিচে মাদকসেবনরত যুবকদের ধাওয়া করলে তারা ছুটাছুটি করে এবং তাদের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। একপর্যায়ে পুলিশ অভিযান শেষে ফিরে যাওয়ার সময় মাদকসেবীরা একত্র হয়ে পুলিশের উপর তেড়ে আসে। এসময় পুলিশ সদস্যরা আত্মরক্ষার্থে কাপ্তাই রিভারভিউ পার্কে প্রবেশ করলে তারা পার্কের সামনে এসে ইট পাটকেল নিক্ষেপ করে। এসময় মাদকসেবীরা পার্কের সামনে পুলিশের দুইটি মোটরসাইকেল ভাংচুর করে কর্ণফুলী নদীতে ফেলে দেয়। এছাড়া তারা রিভার ভিউ পার্কের মুলফটক ভাংচুর করে। ঘটনার সংবাদ পেয়ে কাপ্তাই থানার ওসি নাসির উদ্দীন অতিরিক্ত পুলিশ ফোর্স নিয়ে এসে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন এবং মসজিদে মাইকিং করে তাদেরকে শান্ত থাকার অনুরোধ জানান। পরে কাপ্তাই সেনা জোনের সদস্যরা এসে পুলিশের সাথে মাদকসেবীদের ধাওয়া করলে রাত ১০.৩০ মিনিটে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আসে।

কাপ্তাই সার্কেল এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রওশন আরা রব ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, পুলিশের নিয়মিত অভিযানের অংশ হিসেবে মাদক বিরোধী অভিযান করতে গেলে মাদকসেবীরা উত্তেজিত হয় এবং বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে বলে তিনি জানান।

৪নং কাপ্তাই ইউপি চেয়ারম্যান প্রকৌশলী আবদুল লতিফ  জানান, ইদানিং কাপ্তাই ইউনিয়নে মাদকের আড্ডা এবং বখাটে ছেলেদের উৎপাত বেড়ে যাওয়ায় আমি উপজেলা মাসিক আইনশৃংখলা সভায় এই বিষয়ে প্রতিকার চেয়ে তুলে ধরি, তারই ধারাবাহিকতায় পুলিশের এই অভিযান। কিন্তু কিছু কুচক্রী মহল পুলিশের এই অভিযানে ইন্ধন জুগিয়ে মাদকসেবী নারী এবং পুরুষদের একত্রিত করে পুলিশের উপর হামলা চালানোর চেষ্টা করে।

এদিকে এ বিষয়ে সোমবার ( ১৭ মে ) পুলিশ বাদী হয়ে কাপ্তাই থানায় ২৫ থেকে ৩০ জনের নাম উল্লেখ করে এবং ২০০-২৫০ জন অজ্ঞাতনামার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন।  বর্তমানে ওই এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে এবং পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে বলে কাপ্তাই থানার ওসি মোঃ নাসির উদ্দীন জানান।