কুষ্টিয়ায় পাওনা টাকা চাওয়ায় যুবককে হত্যার দায়ে একজনের যাবজ্জীবন

মোঃ রবিউল ইসলাম হৃদয়, কুষ্টিয়া :
কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে পাওনা টাকা চাওয়ায় ইমারুল নামে এক যুবককে হত্যার অভিযোগে (পলাতক) সাইদুর রহমান (৬০) নামে একজনকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড ও একই সাথে ২৫ হাজার টাকা অর্থদন্ড অনাদায়ে আরও এক বছরের সশ্রম কারাদন্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত।
মঙ্গলবার ৩০ নভেম্বর  দুপুরে কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. তাজুল ইসলাম এ রায় ঘোষনা করেন। হত্যাকান্ডের ঘটনার পর থেকে আসামী সাইদুর রহমান পলাতক আছেন। তবে উক্ত আসামীকে দ্রুত গ্রেপ্তার করে রায়ের কার্যকর করার আদেশ দেন পুলিশকে আদালত।
সাজাপ্রাপ্ত আসামী দৌলতপুর উপজেলার জামালপুর গ্রামের মকলেছের ছেলে সাইদুর রহমান এবং অপর আসামী ওমর আলী ও মনোয়ারা খাতুনকে বেকসুর খালাস দেন আদালত।
আদালত সূত্রে জানা যায়, নিহত ইমারুল ভুষি মালের ব্যবসায়ী ছিলেন। ব্যবসা সূত্রে অনেক দিন ধরে সাইদুর রহমান এর কাছে ত্রিশ হাজার টাকা পাওনা ছিল। সেই টাকা ২০১২ সালে আগষ্ট মাসে সাইদুর রহমান মেয়ের জামাইয়ের বাড়ীতে বেড়াতে আসলে রাস্তায় দেখা হয় ইমারুলের সাথে। সাইদুর রহমানের সাথে ইমারুলের দেখামাত্রই তার পাওনা টাকা ফেরত চায়। এতে সাইদুর রহমান ক্ষিপ্ত হয়ে তার মাথায় বাঁশের লাঠি দিয়ে আঘাত ও গুরুত্ব রক্তাক্ত জখম করে।
 পরে স্থানীয়দের সহযোগিতায় তাকে চিকিৎসার জন্য কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেন। চিকিৎসকের পরামর্শে তাকে ৯ দিন পর রাজশাহী মেডিকেল হাসপাতালে রেফার্ড করলে পথে মারা যায় ইমারুল। পরে নিহত ইমারুলের স্ত্রী বাদী হয়ে দৌলতপুর থানায় ৩ জনের নামে হত্যা মামলা দায়ের করেন।
কুষ্টিয়া থেকে মোঃ রবিউল ইসলাম হৃদয়
এই ওয়েবসাইটের সকল লেখার দায়ভার লেখকের নিজের, স্বাধীন নিউজ কতৃপক্ষ প্রকাশিত লেখার দায়ভার বহন করে না।
এই বিভাগের আরও খবর
- Advertisment -

সর্বাধিক পঠিত

- Advertisment -