কুষ্টিয়ায় ৭ দিনের জন্য বিশেষ লকডাউন ও বিধি নিষেধ জারি করা হয়েছে

0
18

মোঃ রবিউল ইসলাম হৃদয়

কুষ্টিয়ায় করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব বৃদ্ধির কারনে শহরের পৌরসভা এলাকায় ৭ দিনের জন্য বিশেষ লকডাউন ও বিধি নিশেধ জারি করে গনবিজ্ঞপ্তি জারি করেছে জেলা প্রশাসন। ১১ জুন ২০২১ ইং তারিখ গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার জেলা প্রশাসকের কার্যালয়, কুষ্টিয়া (জুডিসিয়াল মুন্সিখানা শাখা)০৫.৪৪.৫০০০,০০৪,৩২,০০৫,২১ স্বারকে জএলা প্রশাসনের ফেইসবুক পেইযে একটি গনবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে নিশ্চিত করা হয়েছে।গণবিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা রয়েছে, সম্প্রতি কুষ্টিয়া জেলায় করােনাভাইরাসজনিত রােগ (কোভিড-১৯) এর সংক্রমণ হার বৃদ্ধি পাওয়ায় এবং সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় জেলা করােনা ভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির ১০ জুন ইং তারিখের সভার সিদ্ধান্ত মােতাবেক ১১ জুন ইং তারিখ মধ্যরাত (১২.০১ মিনিট) হতে আগামী ১৮ জুন ইং তারিখ মধ্যরাত (১২.০০ টা) পর্যন্ত অধিক সংক্রমিত এলাকা বিবেচনায় কুষ্টিয়া জেলার কুষ্টিয়া পৌরসভাধীন সমগ্র এলাকায় নিমােক্তভাবে বিধি-নিষেধ আরােপ করা হলাে। ক) সকল ধরনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, শপিংমল, দোকান, রেস্টুরেন্ট বন্ধ থাকবে। তবে কাঁচাবাজার ও নিত্য প্রয়ােজনীয় পণ্যের দোকান সকাল ০ টা হতে দুপুর ২ টা পর্যন্ত স্বাস্থ্যবিধি মেনে খােলা রাখা যাবে: খ) বিধিনিষেধ চলাকালীন সময়ে কুষ্টিয়া পৌরসভা এলাকায় সকল ধরনের যানচলাচল বন্ধ থাকবেঃ গ) অতি জরুরী প্রয়ােজন ব্যতীত (ঔষধ ও নিত্যপ্রয়ােজনীয় দ্রব্যাদি ক্রয়, চিকিৎসা সেবা, মৃতদেহ দাফন/সৎকার ইত্যাদি) কোনভাবেই বাড়ির বাইরে বের হওয়া যাবে না। তবে ঢাকা কার্ড প্রদর্শন সাপেক্ষে টাকা গ্রহনের জন্য যাতায়াত করা যাবে ঘ) সকল পর্যটনস্থল, রিসাের্ট, কমিউনিটি সেন্টার ও বিনােদন কেন্দ্র বন্ধ থাকবে ঙ) জনসমাবেশ হয় এ ধরনের সামাজিক (বিবাহােত্তর অনুষ্ঠান (ওয়ালিমা), জন্মদিন, পিকনিক, পার্টি ইত্যাদি), রাজনৈতিক ও ধর্মীয় আচার অনুষ্ঠান বন্ধ থাকবে; চ) জরুরী প্রয়ােজনে চলাচলকারী সকলকে বাধ্যতামূলকভাবে মাস্ক পরিধান করতে হবে; ছ) শুধুমাত্র জরুরি সরকারি নির্মাণ কাজ স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে চলমান থাকবে এবং এ সংক্রান্ত পণ্য পরিবহন বিধি-নিষেধের আওতা বহির্ভূত থাকবে। জ) আইন-শৃঙ্খলা এবং জরুরি পরিষেবা যেমন- কৃষি উপকরণ, খাদ্যশস্য ও খাদ্যদ্রব্য পরিবহন, ত্রাণ বিতরণ, স্বাস্থ্য সেবা, গণমাধ্যম (প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া), সরকারের রাজস্ব আদায়ের সাথে সম্পৃক্ত সকল দপ্তর/সংস্থাসমূহ জরুরি পরিষেবার আওতাভুক্ত হবে এবং তাদের কর্মচারী ও যানবাহন এ নিষেধাজ্ঞার আওতা বহির্ভূত থাকবে। পূর্বের ন্যায় শিল্প-কারখানাসমূহ স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণপূর্বক নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় চালু থাকবে। তবে, শ্রমিকদের স্ব স্ব প্রতিষ্ঠান কর্তৃক নিজস্ব পরিবহন ব্যবস্থাপনায় আনা-নেওয়া নিশ্চিত করতে হবে। উক্ত শর্তাবলী সংশ্লিষ্ট সকলকে কঠোরভাবে মেনে চলার জন্য বলা হয়েছে। অন্যথায় প্রয়ােজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।