কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে ধরলা সহ সবকটি নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি, নিম্নাঞ্চল প্লাবিত

0
36

মোঃ মিজানুর রহমান
কুড়িগ্রাম জেলা প্রতিনিধিঃ

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে ভারী বৃষ্টিপাত ও উজানের পাহাড়ী ঢলে ধরলা, নীলকমল, বারোমাসিয়াসহ সবকটি নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। শনিবার দুপুরে শেখ হাসিনা ধরলা সেতু পয়েন্টে নদীর পানি বিপদসীমার ৫ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। ইতিমধ্যে নদী তীরবর্তী নিম্নঞ্চলের বাড়িঘরে প্রবেশ করেছে বন্যার পানি।

উপজেলার বড়ভিটা ইউনিয়নের দক্ষিণ বড়ভিটা এলাকার টাপুর চরে আশ্রয়ন প্রকল্পের ৬৮ টি হতদরিদ্র পরিবারের ঘর ডুবে গেছে। এ সকল পরিবারের অনেকেই উচু স্থানে অথবা ওয়াপদা বাধে আশ্রয় নিয়েছে। এ ছাড়াও পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় বড়ভিটা ইউনিয়নের দক্ষিণ বড়ভিটা, পূর্ব ধনিরাম, পশ্চিম ধনিরাম, নাওডাঙ্গা ইউনিয়নের চর গোরক মন্ডল, কলাবাগান,ঝাউকুটি, ঝামাকুটি, শিমুলবাড়ী ইউনিয়নের চর জোতিন্দ্র নারায়ণ, সোনাইকাজী এলাকার প্রায় ৫ শতাধিক পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়েছে।

টাপুর চর আবাসন প্রকল্পের বাসিন্দা আব্দুস সামাদ, আবুবক্কর মুন্সি ও এসপা বেগম জানান, আমাদের ঘরে বন্যার পানি প্রবেশ করায় আমরা বাড়ী ঘর ছেড়ে চলে এসেছি।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুমন দাস জানান,ধরলাসহ বিভিন্ন নদ-নদীর তীরবর্তী এলাকার মানুষদের খোঁজ খবর রাখা হচ্ছে। ইউনিয়ন চেয়ারম্যানদের সাথে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ অব্যাহত রয়েছে। পানিবন্দি পরিবার গুলোকে নিরাপদ আশ্রয়ে আনার জন্য নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। প্রশাসনের পক্ষ থেকে ত্রাণসহ সব ধরণের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।
লালমনিরহাট পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মিজানুর রহমান জানান,শিমুলবাড়ী শেখ হাসিনা ধরলা সেতু পয়েন্টে পানি বিপদসীমার ৫ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।