কোম্পানীগঞ্জে বাল্যবিবাহ ও মাদক রোধে ৪দিন ব্যাপি প্রশিক্ষণ সম্পন্ন

0
20

এম.এস আরমান,নোয়াখালী।

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে উপজেলা প্রশাসনের উদ্দ্যোগে বাল্যবিবাহ ও মাদক প্রতিরোধে বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন-২০১৭ এবং মাদক নিয়ন্ত্রন আইন-২০১৮ বিষয়ে সচেতনতামূলক ৪ দিন ব্যাপি প্রশিক্ষণ সম্পন্ন হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১০ জুন) সকাল ১০টায় উপজেলা পরিষদ সভাকক্ষে স্থানীয় সরকার বিভাগ ও জাপান ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশন এজেন্সি (জাইকা) ও উপজেলা পরিচালন ও উন্নয়ন প্রকল্পের আর্থিক সহযোগিতায় ৪দিন ব্যাপি এই প্রশিক্ষণ সম্পন্ন করা হয়।

প্রশিক্ষণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপজেলা নির্বাহী অফিসার জিয়াউল হক মীর বলেন,বর্তমান সমাজে অশিক্ষিত পরিবারে কন্যাসন্তানকে বোঝা মনে করা হয়। এটা দূর করতে সহজ উপায় হিসেবে মেয়েকে অল্প বয়সেই বিয়ে দেওয়া হয়। বাল্য বয়সে বিয়ে হওয়ার কারণে মেয়েরা পড়াশোনা ছেড়ে দিতে বাধ্য হয়। প্রজনন স্বাস্থ্য সম্পর্কে জ্ঞান না থাকায় বিবাহিত কিশোরীরা বিভিন্ন শারীরিক সমস্যার পাশাপাশি মানসিক সমস্যার কবলেও পড়ে। কিশোরী বয়সে বিয়ে হওয়ার কারণে ভবিষ্যতে এসব নারী মানসিক, শারীরিক ও যৌনজীবনে মারাত্মক ক্ষতির সম্মুখীন হন। এসব নারী পরবর্তী সময়ে জীবনমান উন্নয়নে ভূমিকা রাখতে পারেন না। এতে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে দেশ ও জাতি ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) সু-প্রভাত চাকমা বলেন, মানবসমাজে অজ্ঞতা ও কুসংস্কারের কারণে যেসব ক্ষতের সৃষ্টি হচ্ছে, বাল্যবিবাহ তার মধ্যে অন্যতম। একটি মেয়ে তার স্কুলজীবন পেরোনোর আগেই বউ হচ্ছে, মা হচ্ছে। জীবন সম্পর্কে সম্যক ধারণা পাওয়ার আগেই সে সংসার-জীবনে প্রবেশ করেছে। অথচ সমাজের অন্য মেয়েদের মতো শিক্ষিত, স্বাবলম্বী কিংবা সুন্দর জীবনযাপনের ন্যূনতম ধারণার অধিকারী সে হতে পারত। বাল্যবিবাহের অবশ্যম্ভাবী পরিণতি হলো, অপরিণত গর্ভধারণ ও অকালমাতৃত্ব। প্রতিবছর গর্ভধারণ ও সন্তান প্রসবকালীন সমস্যার কারণে কমপক্ষে ৬০ হাজার বাল্যবধূ মারাও যায়। বাল্যবিবাহের পরিণতিতে শুধু শিশু, অল্প বয়সী নারী বা তার পরিবারই আক্রান্ত হয় না, এতে দেশ হয় অপুষ্টি ও দুর্বল ভবিষ্যৎ প্রজন্মের উত্তরাধিকারী।

উক্ত আলোচনা সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন,উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মোহাম্মদ সেলিম,কোম্পানীগঞ্জ থানা পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ, উপজেলা প্রকৌশলী শেখ মোহাম্মদ মাহফুজুল হোসাইন,উপজেলা প্রকল্প কর্মকর্তা,জনপ্রতিনিধি সহ বিভিন্ন কর্মকর্তা,সামাজিক ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ প্রমূখ।