ক্যাচ মিস তো ম্যাচ মিস, সেটাই কি হল বাংলাদেশের জন্য?

 

বিশেষ সংবাদদাতা স্বাধীন নিউজ! 

ক্রিকেটে একটা কথা প্রচলিত আছে, ক্যাচ মিস তো ম্যাচ মিস। সেটাই কি ঘটলো বাংলাদেশের বেলায়?

ভারতকে টেস্টে হারানোর দীর্ঘ লালিত স্বপ্নটা স্বপ্নই থেকে গেল। স্বপ্নপূরণের খুব কাছে গিয়েও তা ছুঁতে পারলো না সাকিবের দল।

তবে সম্ভাবনা ছিল খুব বেশি। গতকাল শনিবার পড়ন্ত বিকেলের মত আজ সকালেও মেহেদি হাসান মিরাজ আর সাকিব আল হাসানের জাদুকরি স্পিন বোলিংয়ের মুখে একের পর এক উইকেট পড়েছে ভারতের।

৪ উইকেটে ৪৫ রান নিয়ে খেলতে নামা লোকেশ রাহুলের দল এক পর্যায়ে ৭৪ রানেই ৭ উইকেট হারিয়ে ফেলেছিল। তখনও জয় থেকে ভারত ঠিক ৭১ রান দূরে।

মনে হচ্ছিল, বাংলাদেশের জেতাটা সময়ের ব্যাপার মাত্র। কিন্তু অষ্টম উইকেটে শ্রেয়াস আইয়ার ও রবিচন্দ্রন অশ্বিনের জুটিতেই ভেঙে গেল সে স্বপ্ন।

সাথে থেকে গেলো বড় এক আক্ষেপ। সে আক্ষেপ শুধুই জয়ের সম্ভাবনা জাগিয়ে তা ছুঁতে না পারার নয়। আবার সেই ক্যাচ ফেলার ভুলের মাশুল দিলো বাংলাদেশ।

আজ চতুর্থ দিন অতি গুরুত্বপূর্ণ সময়ে ক্যাচ ফেলে দিয়েছেন মুমিনুল হক। ভারতের রান তখন ৭ উইকেটে ৮০। শ্রেয়াস আইয়ারের সাথে যুক্ত হলেন রবিচন্দন অশ্বিন।

স্পেশালিস্ট ভারতীয় বোলারদের মধ্যে অশ্বিনের ব্যাটিং সামর্থ্য প্রমাণিত। সেই অশ্বিন উইকেটে এসে মাত্র ১ রানে ক্যাচ তুলে দিয়েছিলেন।

কিন্তু অফস্পিনার মেহেদি হাসান মিরাজের বলে ফরোয়ার্ড শর্ট লেগে দাঁড়ানো মুমিনুল তা ধরে রাখতে পারেননি।

আগের দিন এই মিরাজের বলেই ফরোয়ার্ড শর্ট লেগে দাঁড়িয়ে বিরাট কোহলির কঠিন ক্যাচ অসামান্য ক্ষিপ্রতা ও দক্ষতায় মাটির ঠিক ওপর থেকে তুলে নিয়েছিলেন মুমিনুল। তিনিই আজ সহজ ক্যাচ ফেললেন।

ওই ক্যাচ হাতছাড়াই হলো কাল। শেষ পর্যন্ত ম্যাচই হাত থেকে বেরিয়ে গেল। অশ্বিন আর আইয়ারের কেউ আর আউট হলেন না।

অষ্টম উইকেট জুটিতে তারা শেষ পর্যন্ত ৭১ রানের অবিচ্ছিন্ন থেকে ভারতকে এনে দিলেন ৩ উইকেটের স্বস্তির জয়।

 

 

এই ওয়েবসাইটের সকল লেখার দায়ভার লেখকের নিজের, স্বাধীন নিউজ কতৃপক্ষ প্রকাশিত লেখার দায়ভার বহন করে না।
এই বিভাগের আরও খবর
- Advertisment -

সর্বাধিক পঠিত

- Advertisment -