চন্দনাইশে এসিল‍্যান্ড জিমরান মোহাম্মদ সায়েকের বদলীজনিত বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত।

0
27

ইসমাইল ইমন চট্টগ্রাম প্রতিনিধি:

“যেতে নাহি দিব হায় তবু যেতে দিতে হয় তবু চলে যায়”বিশ্ব কবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের রচিত কবিতার একটি লাইন। আর এটিই এখন নিয়ম। সেই নিয়মের ধারাবাহিকতায় জনবান্ধব হয়ে ওঠা কর্মকর্তা চন্দনাইশ উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট
জিমরান মোহাম্মদ সায়েক বদলীজনিত কারণে বিদায় নিয়ে চলে যাচ্ছেন।

তবে সব বিদায়ই মন খারাপের বিষয় নয়। চাকরি জীবনের ক্ষেত্রে এই বিদায় শব্দটি কমন একটা বিষয়। সেই কমন বিদায়েরই আওতার মধ‍্যে পড়েছেন কর্মগুণে সবার প্রিয় হয়ে ওঠা একজন কর্মকর্তা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট জিমরান মোহাম্মদ সায়েক। তিনি সম্প্রতি উপজেলা ভূমি অফিস, পতেঙ্গা সার্কেল চট্টগ্রামে বদলী হয়েছেন।

আর এ কারনেই বিদায় নিতে হচ্ছে তাকে। সরকারি কর্মকর্তা কর্মচারীদের বিরুদ্ধে জনগণের শুধু অভিযোগই পাওয়া যায়। তবে এর মাঝে কিছু বতিক্রমও আছেন। তার মধ‍্যে তিনি একজন।

যিনি নিজের ওপর অর্পিত দায়িত্ব পালনে সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে পালন করে জনগণের আস্থা অর্জন করেছেন। নিজের আন্তরিকতা দিয়ে সেবা প্রদানে হয়রানি থেকে মুক্তি দিয়ে তার দপ্তরকে গড়ে তোলেছেন জনবান্ধব। তার আচরণ ও সততা দিয়ে চন্দনাইশ উপজেলার মানুষের হৃদয়ের মনিকোঠায় স্থান করে নিয়েছেন। তিনি হচ্ছেন চন্দনাইশ উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট জিমরান মোহাম্মদ সায়েক। তিনি দায়িত্ববান, কর্মঠ, সৎ ও কর্মনিষ্ঠায় সর্বদাই ছিলেন নিয়োজিত এসব কথা বক্তারা বিদায় উপলক্ষ্যে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বলেন।

বদলিজনিত বিদায় উপলক্ষ্যে চট্টগ্রামের চন্দনাইশ উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট জিমরান মোহাম্মদ সায়েককে শনিবার (২রা সেপ্টেম্বর) দুপুরে চন্দনাইশ পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ড দক্ষিণ গাছবাড়িয়া ছৈয়দ মোহাম্মদ পাড়া রহমানিয়া আহমদিয়া এ, এস সুন্নিয়া দাখিল মাদ্রাসা, এতিমখানা ও হেফজখানার পক্ষ থেকে মাদ্রাসা হলরুমে আন্তরিক সংবর্ধনা প্রদান করা হয়েছে।

আয়োজিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি আলহাজ্ব অধ্যাপক মো. তৈয়বুর রহমান। অনুষ্ঠানে বিদায়ী সংবর্ধিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিদায়ী সহকারী কমিশনার (ভূমি) জিমরান মোহাম্মদ সায়েক।

চন্দনাইশ প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও মাদ্রাসা কমিটির সদস্য মো. নুরুল আলমের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন চন্দনাইশ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আনোয়ার হোসেন, চট্টগ্রাম পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ চন্দনাইশ জোনাল অফিসের ডিজিএম প্রকৌশলী আবু সুফিয়ান, চন্দনাইশ পৌরসভার সচিব আলহাজ্ব মোহাম্মদ মোহসীন, চন্দনাইশ প্রেস ক্লাবের সভাপতি আবিদুর রহমান বাবুল, আমানতছফা বদরুননেছা মহিলা ডিগ্রি কলেজের অধ্যাপক নজরুল ইসলাম, আবু তাহের-ফরিদা ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান সমাজসেবক মোসলেম মিয়া।

বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন
সাংবাদিক শিবলী ছাদেক কফিল, উপজেলা ভূমি অফিসের কর্মকর্তা রিগ্যান শীল, কর্মকর্তা আরিফুল হক, চন্দনাইশ পৌরসভা আওয়ামী যুবলীগের প্রচার সম্পাদক শহিদুল ইসলাম চৌধুরী টিটু, প্রবাসী আবদুল খালেক, মাদ্রাসা কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবদুর রশিদ, সদস্য কাজী মোহাম্মদ হোসাইন, সদস্য অছিউর রহমান, সদস্য নুর মোহাম্মদ, সদস্য মোশাররফ হোসেন মিশু, প্রধান শিক্ষিকা সুলতানা ইয়ামিন, শিক্ষক যথাক্রমে হাফেজ মওলানা মোঃ জাহেদুল ইসলাম, মওলানা ইয়াছিন আরাফাত রুবেল, মওলানা যাবায়ের হোসেন, মো. আসিফ,
চন্দনাইশ প্রেস ক্লাবের সাংগঠনিক সম্পাদক ফয়সাল চৌধুরী, দপ্তর সম্পাদক আমিন উল্লাহ টিপু, সদস্য সাজ্জাদ হোসেন, সাংবাদিক গৌতম দাশ, সাংবাদিক আরজু, ছাত্রলীগ নেতা কাজী রুমিসহ মাদ্রাসার শিক্ষক, শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও এলাকার গণ্যমাণ্য ব্যক্তিবর্গ।

এসময় বিদায়ী সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট জিমরান মোহাম্মদ সায়েককে মাদ্রাসার পক্ষ থেকে সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করা হয়। এছাড়াও তাঁকে সম্মাননা ক্রেষ্ট প্রদান করে চন্দনাইশ প্রেস ক্লাবের নেতৃবৃন্দ।
এরপর নতুন ভবন সাহিত্যিক পাড়া রহমানিয়া আহমদিয়া এ, এস সুন্নিয়া দাখিল মাদ্রাসা, এতিমখানা ও হেফজখানার কাজের উদ্বোধন করা হয়।

এদিকে বৃহস্পতিবার বিকালে উপজেলা অফিসার্স ক্লাবের পক্ষ থেকে সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট জিমরান মোহাম্মদ সায়েককে বিদায় ও নবাগত সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট ডিপ্লোমেসি চাকমাকে বরণ সংবর্ধনা প্রদান করা হয়।