জাল হালাই কিন্তু মাছ কই?’

0
10

তালহা জুবায়ের, চাঁদপুর

‘জাটকা অভিযানের পরেত্তনে নৌকা জাল লইয়া গাঙ্গো যাই, জাল হালাই কিন্তু মাছ কই? যেমন জাল হালাই, টানার পরেও হেমন খালিই ওডে! ইলিশ তো দূরে থাউক, গাঙ্গো কোনো মাছই নাই। ভাইগ্য ভালা থাকলে জালে দুই চারইটা যা-ই ওডে, হেই দিয়া আমাগো নৌকার খরচের টেহাই অয়না, চাউল-ডাইল কিনমু কেমনে? আমগো সংসারের চাকা আর চলে না। ’

নদীতে ইলিশ ধরতে গিয়ে কাক্সিক্ষত মাছের দেখা না পেয়ে এভাবেই হতাশার কথা বলছিলেন চাঁদপুর শহরের গুয়াখোলা এলাকার জেলে বিনয় বর্মণ।

তিনি বলেন, ‘দুঃখের কতা কি কমু ভাই, গত জাটকা রক্ষা অভিযানে দুই মাস বেকার সময় কাটছে।

হের পরত্তনে ধার-দেনা কইরা সংসার চলছে। আশা ছিল সিজনে মাছ ধইরা ঋণ শোধামু, হেইডা তো অইলোই না, উল্টা অহন সংসার চালানোই দায় অইয়া পড়ছে। গাঙ্গো ইলিশ নাই কইলেই চলে। সারা দিন নদীতে জাল হালাইয়াও মাছের দেহা পাই না। গাঙ্গো ইলিশ নাই, আমগো দুঃখেরও শেষ নাই। ’
বিনয় বর্মণের মতো একই চিত্র জেলার নিবন্ধিত প্রায় অর্ধলাখ জেলের। নদীতে মাছ না পাওয়ার হাহাকার জেলার দুই লক্ষাধিক জেলে পরিবারের সদস্যদের মাঝে।

ইলিশের মৌসুমে বুকভরা আশা নিয়ে নদীতে নামছেন জেলেরা। কিন্তু নদীতে মাছ না পেয়ে জেলেদের লালিত স্বপ্ন পরিণত হচ্ছে দুঃস্বপ্নে।

চাঁদপুর মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. আনিসুর রহমান বলেন, এ বছর বৈশাখ মাসে বৃষ্টিপাত কম হওয়ায় নদীতে পানির স্রোত কম ছিল। এতে করে ইলিশ সমুদ্র থেকে নদীতে আসতে বাধাগ্রস্ত হচ্ছে।