ঢাকা জেলার ধামরাইয়ে কলেজছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ

0
10

মোঃ শান্ত খান ঢাকা জেলা প্রতিনিধি

ঢাকার ধামরাইয়ের শ্রীরামপুরে এক কলেজছাত্রী ধর্ষণের শিকার হয়েছে। এ অভিযোগে বিয়ের দাবি নিয়ে প্রেমিকের বাড়িতে গত চারদিন ধরে অবস্থান করছে কলেজছাত্রী। তবে তার প্রেমিক সাইদুর রহমানসহ তার স্বজনরা তাকে শারীরিক নির্যাতন করে গা ঢাকা দিয়েছে।

এনিয়ে স্থানীয় মাতাব্বররা দফায় দফায় বৈঠক করেও শুক্রবার (২৫ জুন) সকাল পর্যন্ত মিমাংসা করতে পারেনি। এদিকে ধর্ষণের শিকার ওই তরুণী জানায়, তাকে বিয়ে না করলে সে আত্মহত্যা করবে।

জানা গেছে, ধামরাইয়ের শ্রীরামপুর (বর্তা) গ্রামের মোহাম্মদ আলীর ছেলে গার্মেন্টকর্মী সাইদুর রহমান (২৫) বিয়ের প্রলোভন দিয়ে পাশের গাংগুটিয়া ইউনিয়নের বারবারিয়া এলাকার এক কলেজছাত্রীর সঙ্গে প্রায় আড়াই বছর ধরে প্রেমের সর্ম্পক গড়ে তোলে। এরই মধ্যে সাইদুর রহমান বেড়ানোর কথা বলে বিভিন্ন স্থানে নিয়ে প্রেমিকাকে একাধিক বার ধর্ষণ করে।

গত এক সপ্তাহ ধরে সাইদুর রহমান নানা টালবাহানা করতে থাকে। এরপরই ওই প্রেমিকা বিয়ের দাবি নিয়ে গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সাইদুরের বাড়িতে গিয়ে অবস্থান করতে থাকেন। এরপর ওই ছাত্রীকে রাতেই প্রেমিক সাইদুর রহমান ও তার বাবা-মা মিলে চুলের মুঠি ধরে শারীরিক নির্যাতন করে।

ভূক্তভোগী কলেজছাত্রী জানান, বিয়ের প্রলোভন দিয়ে একাধিক বার ধর্ষণ করেছে। এখন আমাকে বিয়ে না করলে আমার আত্মহত্যা ছাড়া আর কোনো উপায় নেই। এদিকে সাইদুরের মামা জাহাঙ্গীর আলম বলেন, আমার ভাগ্নে সাইদুরের সাথে সম্পর্ক আছে শুনেছি তবে বিয়ে করতে রাজি নয় সাইদুর।

এ ব্যাপারে গাংগুটিয়া ইউপি সদস্য ইন্তাজ আলী বলেন, বিষয়টি মিমাংসার জন্য দফায় দফায় চেষ্টা চলছে।

ধামরাই থানার ওসি আতিকুর রহমান বলেন, ধর্ষণের বিষয়ে কোন অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ দিলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।