তাপদাহ কিছুটা কেটে স্বস্তির মেঘ-বৃষ্টিপাত টাঙ্গাইলে সর্বোচ্চ ২৯ মি.মি. বর্ষণ

0
108

হাবিবুর রহমান সুজন

তীব্র তাপদাহ কিছুটা কেটে গিয়ে হঠাৎ বৃষ্টি-বজ্রবৃষ্টি। হিমেল দমকা হাওয়া। উত্তর জনপদের কোথাও কোথাও হয়েছে শিলাবৃষ্টি। প্রচন্ড গরমের মধ্যে গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় দেশের অনেক জেলায় স্বস্তির মেঘ-বৃষ্টিপাতে তাপমাত্রার পারদ কমেছে প্রায় সারাদেশে। মেঘ-বৃষ্টির সুবাদে ঢাকায় সর্বোচ্চ ও সর্বনিম্ন তাপমাত্রা নেমে এসেছে যথাক্রমে ৩৩ ও ২৩ ডিগ্রি সেলসিয়াসে। যা আগের দিন ছিল ৩৬.৫ এবং ২৭.৩ ডিগ্রি। যশোরে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩১.২, সেখানে আগের দিন পারদ উঠে দেশের সর্বোচ্চ ৩৯.৮ ডিগ্রি। গতকাল দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল রাঙ্গামাটি ও ফেনীতে ৩৬ ডিগ্রি সে.।
আজও দেশের অনেক জায়গায় দমকা থেকে ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি-বজ্রবৃষ্টি, আবার কোথাও কোথাও শিলাবৃষ্টির পূর্বাভাস দেয়া হয়েছে। গতকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় দেশের সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাতের রেকর্ড টাঙ্গাইলে ২৯ মিলিমিটার। এছাড়া ঢাকায় ও ময়মনসিংহে ৩, নেত্রকোনায় ৪, সিলেটে ২, রাজশাহীতে ৬, ঈশ^রদীতে ২২, বগুড়ায় ৩, বদলগাছীতে ৭, তাড়াশে ১৯, সৈয়দপুরে এক, তেঁতুলিয়ায় ১০, কুষ্টিয়ায় ৭ মি.মি. এবং কুমিল্লা, যশোর, চুয়াডাঙ্গাসহ বিভিন্ন স্থানে সামান্য বৃষ্টিপাত হয়েছে।

রাজশাহী বিভাগে দীর্ঘদিনের খরার মাঝে হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টিপাতে কিছুটা হলেও প্রশান্তি এনে দিয়েছে তীব্র তাপপ্রবাহে আধপোড়া বরেন্দ্র অঞ্চলে। আজ শুক্রবার সন্ধ্যা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টার পূর্বাভাসে জানা গেছে, ঢাকাসহ দেশের সবক’টি বিভাগের দুয়েক জায়গায় অস্থায়ী দমকা থেকে ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি, বজ্রসহ বৃষ্টিপাত হতে পারে। কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্তভাবে শিলাবৃষ্টি হতে পারে। সারাদেশে দিনের তাপমাত্রা সামান্য বৃদ্ধি এবং রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে। বাতাস দক্ষিণ-পশ্চিম, দক্ষিণ দিক থেকে ঘণ্টায় ৮ থেকে ১২ কিলোমিটার, যা অস্থায়ীভাবে দমকায় ৫০ থেকে ৬০ কি.মি. বেগে প্রবাহিত হতে পারে।

পরবর্তী ৪৮ ঘণ্টায় বৃষ্টি-বজ্রবৃষ্টির প্রবণতা হ্রাস পেতে পারে এবং তাপমাত্রা ফের বৃদ্ধি পেতে পারে। এরপরের ৫ দিনে আবহাওয়ার সামান্য পরিবর্তন হতে পারে। এদিকে আবহাওয়া বিভাগ জানায়, পশ্চিমা লঘুচাপের একটি বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ ও এর সংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছে। এর বর্ধিতাংশ উত্তর বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে।