তাপমাত্রা দেশের সর্বনিম্ন পঞ্চগড়ে ৬.৯ ডিগ্রি

 

 

পঞ্চগড় প্রতিনিধি স্বাধীন নিউজ!
উত্তরের জেলা পঞ্চগড়ের ওপর দিয়ে বয়ে চলছে মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ। সপ্তাহজুড়ে ঘন কুয়াশা আর হিমশীতল বাতাসের কারণে হাড়কাঁপানো শীত অনুভূত হচ্ছে।

মঙ্গলবার (১০ জানুয়ারি) সকাল ৯টায় সর্বনিম্ন ৬ দশমিক ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করেছে তেঁতুলিয়া আবহাওয়া অফিস। এই তাপমাত্রা দেশের মধ্যে এবং চলতি শীত মৌসুমের মধ্যেও সর্বনিম্ন। সোমবার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

অবশ্য সকাল থেকেই জেলায় দেখা মিলেছে সূর্যের। তবে অনুভূত হচ্ছে প্রচণ্ড শীত। সূর্যের মুখ দেখা গেলেও মিলছে না রোদের উষ্ণতা। শীত দুর্ভোগে পড়েছে শ্রমজীবী-কর্মজীবী গরিব অসহায় মানুষ।

পাথর শ্রমিক, চা-শ্রমিক, দিনমজুর থেকে শুরু করে ছোটখাটো যানবাহন ভ্যানচালক মানুষগুলো পড়েছেন বিপাকে। তীব্র শীতের কারণে কাজে যেতে পারছেন না অনেকে। তবে জীবিকার তাগিদে কাউকে নদীতে পাথর তুলতে, কাউকে চা-বাগানে আবার কাউকে দিনমজুরের কাজ করতে যেতে দেখা গেছে।

শীতের দুর্ভোগ বেড়েছে শিশু ও বয়স্কদের মধ্যে। এসব মানুষের কষ্ট লাঘবের জন্য সরকার যে ত্রাণ দিয়েছে, তা একেবারে অপ্রতুল বলে জানিয়েছেন ভুক্তভোগীরা।

জেলা শহরের তেঁতুলিয়া রোডের দোকানদার আব্দুস সালাম বলেন, ঘনকুয়াশা আর ঠান্ডার কারণে কয়েক দিন ধরে সকাল সকাল দোকান খুলতে পারিনি।

সোমবার সকালে রোদ থাকায় কিছুটা হলেও স্বস্তি মিলেছে। দুই দিন ধরে সকাল সকাল দোকান খুলছি।

তেঁতুলিয়া আবহাওয়া অফিসের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. রাসেল শাহ বলেন, মঙ্গলবার সকাল ৯টায় সর্বনিম্ন ৬ দশমিক ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে। যা দেশের মধ্যে এবং চলতি শীত মৌসুমের মধ্যেও সর্বনিম্ন। সোমবার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

 

 

এই ওয়েবসাইটের সকল লেখার দায়ভার লেখকের নিজের, স্বাধীন নিউজ কতৃপক্ষ প্রকাশিত লেখার দায়ভার বহন করে না।
এই বিভাগের আরও খবর
- Advertisment -

সর্বাধিক পঠিত

- Advertisment -