দুই বছর পর রহস্য উদঘাটন চলন্ত ট্রেন থেকে ফেলে হত্যা করা হয় তরুণ সাংবাদিক ফাগুনকে

0
13

জামালপুর প্রতিনিধি

তরুণ সাংবাদিক ইহসান ইবনে রেজা ফাগুন

জামালপুরে বহুল আলোচিত সাংবাদিক ইহসান ইবনে রেজা ফাগুন হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটন করেছে পিবিআই। ট্রেনে একটি ছিনতাইকারী চক্র ছিনতাইয়ের পর চলন্ত ট্রেন থেকে ফেলে তাকে হত্যা করে বলে জানিয়েছেন জামালপুরের পুলিশ সুপার এমএম সালাহ উদ্দীন।
বৃহস্পতিবার দুপুরে পিবিআই জামালপুরের কনফারেন্স রুমে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান তিনি। মামলাটি এক বছর আট মাস রেলওয়ে পুলিশের কাছে থাকার পর চার মাস আগে পিবিআইয়ের কাছে আসে।

পুলিশ সুপার এমএম সালাহ উদ্দীন জানান, হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে প্রত্যক্ষভাবে জড়িত ময়মনসিংহের তারকান্দা উপজেলার আব্দুল মজিদের ছেলে মো. সোহরাব মিয়া গাজীপুরের শ্রীপুর থানার একটি মামলায় গ্রেফতার হয়। তাকে ফাগুন হত্যা মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। তার জবানবন্দিতে উঠে এসেছে- হত্যাকাণ্ডে জড়িত ছিল পাঁচজন। এরা ট্রেনে সংঘবদ্ধভাবে ছিনতাই ও চুরির সঙ্গে জড়িত। খাবারের সঙ্গে ঘুমের ওষুধ কিংবা চেতনানাশক মিশিয়ে যাত্রীদের অচেতন করে টাকা, মোবাইলসহ মূল্যবান মালামাল হাতিয়ে নেয়াই এদের কাজ। সাংবাদিক ফাগুনের ক্ষেত্রেও এমনটি হয়েছে। তার সঙ্গে মোবাইল-ক্যামেরাসহ মূল্যবান মালামাল থাকায় সংঘবদ্ধ ছিনতাইকারীদের টার্গেট হয়েছিলেন তিনি।

সোহরাব মিয়াকে জবানবন্দিতে জানায়, সে চার বছর ধরে গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার নয়নপুরে থাকত। আসামি মাজহারুল ইসলাম রুমানও তার সঙ্গে থাকত। আরেক আসামি শফিক খান আন্তঃজেলা অজ্ঞান পার্টির সক্রিয় সদস্য ও ছিনতাইকারী। শফিক খানের নেতৃত্বেই সোহরাব, রুমান, নজরুল ও শফিকুল ট্রেনে ও বাসে যাত্রীদের মোবাইল, টাকাসহ মূল্যবান মালামাল ছিনতাই-চুরি করত।