দুর্গাপুরে চার মাসেও আসামি গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ।

0
14

নেত্রকোনা প্রতিনিধি।

নেত্রকোনার দুর্গাপুর উপজেলার খালিশাপাড়া গ্রামের স্কুলছাত্রীকে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ মামলার আসামিকে প্রায় চারমাসেও গতকাল শনিবার পর্যন্ত গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। এ নিয়ে স্কুলছাত্রীর পরিবার ও এলাকাবাসীর মধ্যে হতাশা ও ক্ষোভ বিরাজ করছে। স্কুলছাত্রীর পরিবার ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, জেলার দুর্গাপুরের খালিশাপাড়া গ্রামের ওই স্কুলছাত্রী গুজিরকোনা উচ্চ বিদ্যালয়ের এসএসসি পরীক্ষার্থী। বিদ্যালয়ে আসা যাওয়ার পথে প্রতিবেশী বাকলজোড়া ইউনিয়নের কাকজোড় গ্রামের আলতু মিয়ার ছেলে সাকিব (২২) উত্যক্ত করত। এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। বিয়ে করার প্রলোভনে সাকিব ওই স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ করে। পরে বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হলে স্কুলছাত্রীর পরিবার বিয়ের জন্য সাকিবের পরিবারকে বলে।

এতে সাকিবের চাচা মো. তারা মিয়া ও পরিবারের অন্যরা এতে অপারগতা প্রকাশ করে। এ ব্যাপারে এলাকার মাতাব্বরদের কাছে একাধিকবার বিচারপ্রার্থী হয়েও কোন কাজ হয়নি। পরে গত ৭ ফেব্রুয়ারী স্কুলছাত্রী বাদী হয়ে নেত্রকোনা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে সাকিব ও তার চাচা তারা মিয়ার বিরুদ্ধে মামলা করেন। মামলা দায়েরের চার মাস সময়ে গতকাল শনিবার পর্যন্ত মামলার কোন আসামিকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। দুর্গাপুর থানার অফিসাপর ইনচার্জ (ওসি) শাহ নূর এ আলম বলেন, আসামিদের গ্রেপ্তারের জন্য চেষ্টা চালানো হচ্ছে। মামলা দায়েরের পর থেকে ওরা আত্মগোপন করেছে। ওদেরকে এলাকায় পাওয়া যাচ্ছে না।