দেশীয় অস্ত্রসহ ৯ ডাকাত সদস্য আটক

0
51

মোঃ শান্ত খান ঢাকা জেলা প্রতিনিধি

সাভারের আশুলিয়ায় আওয়ামী লীগ নেতার এক বাড়িসহ বিভিন্নস্থানে অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমাণ দেশীয় অস্ত্রসহ কুখ্যাত ৯ ডাকাত সদস্যকে আটক করেছে র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন র‌্যাব ৪। রোববার (২৩ মে) রাতে আশুলিয়ার ইয়ারপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মজিবর রহমান শাহেদ ওরফে (চোরা) মজিবরের বাড়ি ও বাইপাইল ও পল্লীবিদ্যুৎ থেকে তাদেরকে আটক করে র‌্যাব ৪।

র‌্যাব ৪ জানান, আশুলিয়ার ঘোষবাগ এলাকায় ইয়ারপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মজিবর রহমান শাহেদ ওরফে (চোরা) মজিবরের বাড়িতে দেশীয় অস্ত্রসহ ডাকাতদল অবস্থান করছে গোপন সংবাদের ভিতিত্বে অভিযান পরিচালনা করা হয়। এসময় ওই বাড়িতে তল্লাশী চালিয়ে ডাকাত মুনসুর আলী ওরফে রনি ও কামাল হোসেনকে আটক করা হয়। এসময় তাদের কাছ থেকে ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত তিনটি রাম দা, দুইটি হাতুরি, একটি চাইনিজ কুড়াল ও এক কেজি গাঁজা উদ্ধার করা হয়।

র‌্যাব আরও জানান,ওই এলাকার পোশাক কারখানার শ্রমিকরা বেতন পাওয়ার পরে ওই ডাকাতরা অস্ত্রের মুখে ভয়ভীতি দেখিয়ে তাদের কাছ থেকে টাকাসহ মুল্যবান মালামাল লুটপাটকরে দিনের বেলায় ওই আওয়ামী লীগ নেতার বাড়িতে লুকিয়ে থাকতো আর রাতের বেলায় তারা ডাকাতি করতো বিভিন্ন স্থানে। এলাকাবাসীর অভিযোগ, ওই আওয়ামী লীগ নেতা নিজ এলাকায় দলীয় নেতাকর্মীদের কাছে কোনঠাসা হয়ে নানা অপকর্মে জড়িয়ে পড়েছেন নিজের নাম খেতি পেয়েছেন চোরা মজিবর হিসেবে থাকেন উত্তরার মত নামি দামি যায়গায় বিলাশবহুল ফ্যাটে চড়েন সাধা রঙের একটি পাজারো গাড়িতে। এলাকাবাসী অবিলম্বে তাদের কঠোর শাস্তি দাবি করেছেন।

এবিষয়ে যোগাযোগ করা হলে আওয়ামী লীগ নেতা মজিবর বলেন অন্যায়কারী যেই হোক আমি তার বিচার চাই আপনার বাড়ি থেকে ডাকাতদল গ্রেপ্তার হয়েছে এমন প্লশ্ন করা হলে তিনি বিষয়টি এড়িয়ে যান।

অপর দিকে আশুলিয়ার বাইপাইল ও পল্লী বিদ্যুৎ এলাকায় অভিযান চালিয়ে, সাত ডাকাত সদস্যকে আটক করেছে র‌্যাব। তারা হলেন-আলিফ, কালাম, রুবেল মৌলবি, লিটন রানা, রাকিব, রেজাউল করিম ও মিলন মিয়া। এসময় তাদের কাছ থেকে বিভিন্ন রকমের বিপুল পরিমাণ দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করা হয়।আশুলিয়াসহ বিভিন্ন এলাকায় এই ডাকাতরা যানবাহনসহ বিভিন্ন বাড়িতে ডাকাতি করে আসছিলো।

আটক দলের বিরুদ্ধে আশুলিয়া থানায় মামলা দায়ের করে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

এবিষয়ে র‌্যাব ৪ এর সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার উনু মং বলেন, ওই ডাকাত দলের সাথে অন্য কেউ জড়িত আছে কিনা বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।