ধামরাইয়ে সড়ক দুর্ঘটনায় দুইজনসহ মৃত্যু ৩

0
14

মোঃ শান্ত খান ঢাকা জেলা প্রতিনিধি

ঢাকার ধামরাইয়ে পুত্রবধুর নির্যাতনে লাবিব উদ্দিন (৭৫) নামের এক বৃদ্ধের মৃত্যুর অভিযোগ পাওয়া গেছে। নিহতের মরদেহ বাড়ির পাশের পুকুর থেকে উদ্ধার করা হয়। এঘটনায় পুত্রবধুকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার (৮ জুন) বিকেলে ধামরাই এর বাইশাকান্দা ইউনিয়নের গোলাকান্দা গ্রামের একটি পুকুর থেকে ভাসমান অবস্থায় তার মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। মৃত লাবিব মিয়া একই এলাকার মৃত আব্দুল খালেকের ছেলে।

এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক হলেন লাবিব উদ্দিনের ছেলে জিয়াউদ্দিনের স্ত্রী সুমি (৪০)। নিরাপত্তার জন্য আটকের বাবা মাকে সাথে নিয়ে গেছে পুলিশ।

এদিকে নিহতের ছেলে জিয়া উদ্দিন এলাকার বাইরে একটি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত আছেন। তাকে খবর দেয়া হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে পুলিশ।

স্থানীয়রা জানায়, অনেক আগেই সন্তানেরা বাবার সমস্ত সম্পদ কৌশলে দলিল করে নেন। এর পর থেকে তাদের বাবাকে খাবার না দিয়ে বিভিন্নভাবে নির্যাতন করতো। অনেক দিন ধরেই এমন নির্যাতন সহ্য করছেন বৃদ্ধ লাবিব উদ্দিন। অন্যের বাড়ি থেকে খাবার খেলেও মানসিক ও শারীরিক নির্যাতন করতো। কোন দিন কোথাও অভিযোগ দেন নি তিনি।

এসময় এমন সন্তানের সর্বোচ্চ শাস্তি ফাঁসির দাবিতে “ফাঁসি চাই, ফাঁসি চাই” স্লোগানে ঘটনাস্থলেই বিক্ষোভ করেছেন এলাকাবাসী।

পুলিশ জানায়, ওই এলাকার একটি পুকুরে ভাসমান অবস্থায় বৃদ্ধের মরদেহ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেয় স্থানীয়রা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। নিহতের শরীরে বিভিন্ন জায়গায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, তাকে মারধর করে মেরে ফেলার পর তার লাশ পুকুরে ফেলে দেয়া হয়েছে।

ধামরাই থানার পুলিশ পরিদর্শক জসিম জানান, নিহতের মরদেহ ঢাকার শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। প্রাথমিকভাবে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য এক জনকে আটক করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারনা করা হচ্ছে, তার মৃত্যুর জন্য পুত্রবধূ জড়িত থাকতে পারে। তবে ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে মৃত্যুর কারণ নিশ্চিত ভাবে বলা যাবে।

এছাড়া ধামরাইর শ্রীরামপুর ও আশুলিয়ার শ্রীপুর থেকে দুই যুবকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহত দুই জনেই সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। গত তিন দিনে সাভার ও আশুলিয়া থেকে অজ্ঞাত তিন জনের লাশ উদ্ধার করেছিলো পুলিশ।