পৃথিবীর সবথেকে দামি গাছ-১ কাঠায় চাষ করলে সাত পুরুষ বসে খাবে!

স্বাধীন নিউজ ডেস্ক!

কৃষিনির্ভর ভারতবর্ষে চাল, গম, শাকসবজি থেকে শুরু করে সব ধরনের মশলা, ফল, পানীয় এবং দৈনন্দিন জীবনে প্রয়োজনীয় এমন বহু ফসলের চাষাবাদ হয়।

যা শুধু দেশ নয়, বিদেশের চাহিদাও মেটায়। তেমনই ভারতে এমন একটি দামি গাছের চাষ করা হয় যা কার্যত রাতারাতি কোটিপতি করে দিতে পারে চাষীদের।

দেশে-বিদেশে এই গাছের কাঠের চাহিদা প্রচুর। আর সুগন্ধে মুগ্ধ গোটা পৃথিবী।

এতক্ষণে নিশ্চয়ই আন্দাজ করে নিয়েছেন সেই গাছ সম্পর্কে? এই গাছের কাঠের দাম প্রচুর। হাতের আঙ্গুল পরিমাণ এক টুকরো কাঠও ঠাকুরঘরে রাখলে সুগন্ধে ভরে ওঠে গোটা বাড়ি। হ্যাঁ, পৃথিবীর সবথেকে দামি গাছ হল চন্দন গাছ (Sandalwood Tree)।

চন্দন কাঠের দাম আকাশছোঁয়া। এই কাঠের আসবাবপত্র থেকে শুরু করে ঘর সাজানোর উপকরণের অনেক চাহিদা রয়েছে বাজারে। আবার সুগন্ধি প্রস্তুতিতেও গাছের অনেক নামডাক রয়েছে।

এক একর জমিতে চাষ করলে পূর্ণবয়স্ক গাছ থেকে ৩০-৩২ কোটি টাকা উপার্জন করা যায়। আজ জেনে নিন চন্দন চাষ সম্পর্কিত কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য।

১. এই গাছ যেমন চাষীকে রাতারাতি কোটিপতি করে দিতে পারে তেমনই এর চাষের কাজে কিন্তু অল্পবিস্তর খরচ হয়। একসঙ্গে অনেকগুলো চারা কিনলে ৫০০ টাকা করে দাম পড়ে। একটি বা দুটি চারা কিনতে চাইলে দাম আরও বেশি লাগে।

২. একটি গাছ পূর্ণবয়স্ক হতে সময় নেয় ১২ বছর। অর্থাত্‍ ১২ বছর ধরে গাছটিকে সযত্নে লালন পালন করতে হবে। প্রথম চার বছর গাছে তেমন সুগন্ধ থাকে না। গাছটি দামি হওয়ার কারণে চুরি যাওয়ারও ভয় থাকে। তাই সব সময় সতর্ক থাকতে হয়।

৩. চন্দন গাছের সঙ্গে একটি হোস্ট গাছের চাষ করতে হয়। তাই একই সময়ে দুটি গাছের সমান যত্ন নিতে হয়। কোনও কারণে হোস্ট নষ্ট হয়ে গেলে চন্দন গাছটিও নষ্ট হয়ে যাবে।

৪. চন্দন গাছ চাষের জন্য খুব বেশি জলের প্রয়োজন হয় না। নিচু জমিতে কিংবা জল জমে যায় এমন জমিতে চাষ করলে গাছ পচে যাবে।

৫. সাধারণত যে সকল স্থানের তাপমাত্রা বেশি সেখানে চন্দন গাছ খুব বেশি ভালোভাবে বাড়তে পারে না। তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রীর বেশি বেড়ে গেলে চন্দনের বৃদ্ধি ব্যাহত হয়।

৬. পূর্ণবয়স্ক চন্দন গাছ থেকে ১৫-২০ কেজি কাঠ পাওয়া যায়। এই পরিমাণ কাঠ বিক্রি করে ৫-৬ লক্ষ টাকা বা তারও বেশি উপার্জন করা যায়।

৭. চন্দন গাছ আপনি বিদেশে রপ্তানী করতে পারবেন না। আপনাকে সরকারের কাছেই কাঠ বিক্রি করতে হবে। কেবল সরকারই চন্দন কাঠ বিদেশে রপ্তানী করতে পারে।

এই ওয়েবসাইটের সকল লেখার দায়ভার লেখকের নিজের, স্বাধীন নিউজ কতৃপক্ষ প্রকাশিত লেখার দায়ভার বহন করে না।
এই বিভাগের আরও খবর
- Advertisment -

সর্বাধিক পঠিত

- Advertisment -