ফারাজ করিম চৌধুরীর ব্যতিক্রমী ঈদ উদযাপন

0
15

মুহাম্মদ দিদারুল আলম,রাউজান প্রতিনিধিঃ
রাউজানের এই প্রজন্মের আইকন নির্যাতিত নারী শিশু,সন্তানের পরিত্যাজ্য বৃদ্ধা মা বাবার একান্ত পাশের বন্ধু রাউজান সাংসদ পুত্র ফারাজ করিম চৌধুরীর ব্যতিক্রমী ঈদ পালন।
তিনি পবিত্র ঈদুল আজাহার নামাজ শেষে বের হন মানবতার সেবায় তার প্রতিষ্ঠিত সেন্ট্রাল বয়েজ অব রাউজান সংগঠনের হেল্প ডেস্কে আসা বিভিন্ন অভিযোগের প্রেক্ষিতে রাউজান উপজেলা হতে প্রায় ১০/১২ কিঃমিঃ দূরে ১নং হলদিয়া ইউনিয়নের স্বামী স্ত্রীর পারিবারিক সমস্যা নিরসনে দ্রুত গতিতে ঘঠনাস্থলে পৌছে স্বামী-স্ত্রীর বিচ্ছিন্নতা কে পারিবারিক বন্ধনে আবদ্ধ করেদেন।
তা ছাড়া রাউজানের কয়েকটি ইউনিয়নের যুবক,পিতা,পুত্রের সংঘটিত নানা সমস্যা ও অনিয়মগুলো সুরহা করেন। তিনি হলদিয়া ভিলেজ সড়ক পরিদর্শন করেন এবং বিশিষ্ট সমাজ সেবক এস,এম মুছার মায়ের কবির জিয়ারতে অংশ নেন,এসময় তিনি সবার উদ্যেশ্যে বলেন – চেহেরা দেখে যদিও কিছু ক্ষুদার্থ মানুষ নির্ণয় করা সম্ভব হলেও চোখ দেখে বুকে জমাট বাধাঁ দুঃখ কষ্টের কথা বুঝা খুবিই অসাধ্য, আমি লাল গালিছার উপরে হেটেঁ সিংহাসনে বসতে চাইনা, আমি চাই সবুজ গালিচা মাঠ আর জলধার পেরিয়ে বিচ্ছিন্নতায় দূরে থাকা কুঁড়েঘরে হাহাকার এতিম ভাই ও বিধাবা মায়ের কষ্টের কথা শুনতে। আমি চাই সবার মুখের আনন্দের হাসিঁ, আমার খুবি কষ্ট পাই,যখন শুনি নির্যাতিত অমুকের স্ত্রী খেল আজ ফাসিঁ,, তিনি আরো বলেন আমি শুধু রাউজান নয়, আমি চাই পৃথিবীর যে কোন প্রান্তে নির্যাতিত নিপিড়িত অসহাদের পাশে গিয়ে দাঁড়াতে।
এর আগে তিনি উপজেলার উরকিরচর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল জব্বার সোহেল এর বাসায় মধ্যাহ্ন ভোজ সম্পন্ন করার পর পথশিশুদের মাঝে কুরবানির মাংস বিতরণ করার পাশাপাশি তাঁদের সাথে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগিতে অংশ নেন। সারাদিনের এই কর্মযজ্ঞে সাথে ছিলেন চিকদাইর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বাবু প্রিয়তোষ চৌধুরী, পাহাড়তলি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রোকন উদ্দিন, হলদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা শফিকুল ইসলাম, বিশিষ্ট ব্যাবসায়ী সমাজ সেবক এস,এম মুসা, সেন্ট্রাল বয়েজ অব রাউজান’র নেতৃবৃন্দ। হলদিয়া হতে যোগদেন হলদিয়া সাজেদা কবির চৌধুরী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি ও “স্বাধীন নিউজের রাউজান উপজেলা প্রতিনিধি মাওলানা মুহাম্মদ দিদারুল আলম ক্বাদেরী প্রমুখ।