ফিলিস্তিনিদের জন্য মানবিক সহায়তার আহ্বান জাতিসংঘের

0
42

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

গাজায় ফিলিস্তিনিদের জন্য মানবিক সহায়তার আহ্বান জানিয়েছেন জাতিসংঘের প্রধান অ্যান্তনিও গুতেরেস। ক্ষতিগ্রস্ত জনগোষ্ঠীর জন্য পর্যাপ্ত তহবিল নিশ্চিত করার জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

এক টুইট বার্তায় তিনি বলেন, অবরুদ্ধ গাজায় মানবিক দুর্দশা এবং ঘর-বাড়ি ও অত্যাবশ্যক অবকাঠামোর ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হতে দেখছি আমরা। এর আগে জাতিসংঘের মানবিক সহায়তা বিষয়ক প্রধান মার্ক লোকক গাজায় মানবিক সহায়তা প্রবেশে অনুমতি দেয়ার আহ্বান জানান।

সম্প্রতি সীমান্ত খুলে দেয়ার কিছু পরেই মর্টার হামলায় নিজেদের এক সেনার সামান্য আহত হওয়ার কথা জানিয়ে তা বন্ধ করে দিয়েছে ইসরায়েল। এর ফলে গাজায় ত্রাণবাহী ট্রাকের বহর আর ঢুকতে পারছে না।

আল জাজিরার এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়ে বলা হয়েছে, ইসরায়েলি কো-অর্ডিনেটর অব গভর্নমেন্ট অ্যাক্টিভিটিজ ইন দ্য টেরিটোরিজ (কোগাট) মঙ্গলবার (১৮ মে) গাজায় ত্রাণ পৌঁছানোর জন্য সাময়িকভাবে কারেম আবু সালেম সীমান্ত খোলার ঘোষণা দেয়। এরপর সেখান দিয়ে ত্রাণবাহী ট্রাক ঢুকতেও শুরু করে। কিন্তু কিছুক্ষণ পরেই মর্টার হামলায় এক ইসরায়েলি সেনা সামান্য আহত হওয়ার কথা জানিয়ে সীমান্ত বন্ধের ঘোষণা দেয় কোগাট।

জাতিসংঘের সহায়তা সংস্থা মঙ্গলবার জানিয়েছে, গাজা উপত্যকায় ইসরায়েলি হামলায় প্রায় ৪৫০টি ভবন ধ্বংস বা ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এতে ৫২ হাজারের বেশি ফিলিস্তিনি বাস্তুচ্যুত হয়েছেন।

বাস্তুচ্যুতদের মধ্যে প্রায় ৪৭ হাজার মানুষ গাজায় জাতিসংঘ পরিচালিত ৫৮টি স্কুলে আশ্রয় নিয়েছেন বলে জাতিসংঘের মানবিক ত্রাণসহায়তা বিষয়ক সমন্বয়ক জেনস লায়েরকে জানিয়েছেন।

মঙ্গলবার (১৮ মে) রাত ১০টা থেকে সাড়ে ১০টার মধ্যে মাত্র ২৫ মিনিটে উপত্যকার বিভিন্ন এলাকায় ১২২টি শক্তিশালী বোমা নিক্ষেপ করা হয়।

এ হামলায় অন্তত ৬০টি যুদ্ধ বিমান ব্যবহার করেছে ইসরায়েলি বাহিনী। তারা গাজায় হামাসের সুড়ঙ্গ ও ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত অন্তত ৬৫টি স্থানে হামলার দাবি করেছে।

অপরদিকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের ‘যুদ্ধবিরতির’ আহ্বানের পরও গাজা উপত্যকায় বিমান হামলা অব্যাহত রেখেছে ইসরায়েল। হামলায় নিহত ফিলিস্তিনিদের সংখ্যা বেড়ে ২২০ জনে দাঁড়িয়েছে।

অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় ইসরায়েলের অব্যাহত বিমান হামলা দ্বিতীয় সপ্তাহে গড়িয়েছে। গাজায় ইসরায়েলি হামলায় এখন পর্যন্ত অন্তত ২২০ ফিলিস্তিনি নাগরিক নিহত হয়েছেন, যাদের মধ্যে ৬৩ জন শিশু। এছাড়া আহত হয়েছেন অন্তত দেড় হাজার ফিলিস্তিনি।

এছাড়া ফিলিস্তিনের ইসলামী প্রতিরোধ আন্দোলন হামাসের পাল্টা হামলায় ইসরায়েলের তিন সেনাসহ ১২ জন নিহত হয়েছেন। এর মধ্যে দুই শিশু এবং একজন ভারতীয় নারী রয়েছেন। এছাড়া ইসরায়েলের অন্তত ৩শ জন আহত হয়েছেন।

এদিকে গাজা উপত্যকায় দখলদার ইসরায়েলি বাহিনীর অব্যাহত বিমান হামলায় ইউসেফ আবু হুসেন নামে একজন সাংবাদিক নিহত হয়েছেন। তিনি ‘আল-আকসা ভয়েস’ নামে একটি রেডিওতে কর্মরত ছিলেন। মঙ্গলবার (১৮ মে) রাতে ইসরায়েলি বাহিনীর নৃশংস হামলায় তিনি নিহত হন।