বরিশাল মেয়রসহ চারজনের নামে নালিশি মামলার আবেদন

নিজস্ব প্রতিবেদক | বরিশাল |

ট্রেড লাইসেন্স না দিয়ে এক ব্যবসায়ীকে হয়রানি করার অভিযোগে বরিশাল সিটি করপোরেশনের (বিসিসি) মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহসহ চার কর্মকর্তার নামে আদালতে নালিশি মামলার আবেদন করা হয়েছে।

রোববার (২১ নভেম্বর) দুপুরে বরিশাল নগরীর মুসলিম গোরস্থান রোডের বাসিন্দা এসএম রেজা তাহেরের পক্ষের আইনজীবী সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে নালিশি আবেদনটি করেন। আদালতের বিচারক রুবাইয়া আমেনা আবেদনটি পরবর্তী শুনানির জন্য রেখেছেন।

নালিশি মামলার আবেদনে বরিশাল সিটি করপোরেশনের (বিসিসি) মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ ছাড়াও বিসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা, প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা এবং ট্রেড লাইসেন্স শাখার তত্ত্বাবধায়ককে অভিযুক্ত করা হয়েছে।

এসএম রেজা তাহেরের পক্ষের আইনজীবী আজাদ রহমান জানান, ব্যবসায়ী রেজা তাহের ঢেউটিন ও প্লেনশিট তৈরির জন্য প্রতি মাসে ১৮ হাজার টাকায় নগরীর কাউনিয়া বিসিক শিল্পনগরীর বি ব্লকের ৪১ নম্বর প্লটে দুই হাজার বর্গফুটের কারখানা ভাড়া নেন। ব্যবসা পরিচালনার জন্য তিনি গত ১২ অক্টোবর বিসিসির ট্রেড লাইসেন্স শাখায় লাইসেন্স চেয়ে আবেদন করেন। ওই শাখা এ ব্যাপারে কোনো পদক্ষেপ না নিলে ৩ নভেম্বর বিসিসি মেয়র বরাবর ট্রেড লাইসেন্সের অনুমতি চেয়ে আবেদন করেন। এরপরও কোনো পদক্ষেপ না নেওয়ায় গত ৮ নভেম্বর আইনজীবীর মাধ্যমে আইনি নোটিশ পাঠান।

নোটিশের সাতদিনের মধ্যে ট্রেড লাইসেন্স দেওয়ার অনুরোধ করা হয়। তবে সাতদিন অতিবাহিত হওয়ার পরও কোনো জবাব না পেয়ে বেশ কয়েকবার অভিযুক্তদের কার্যালয় গিয়ে দেখা করে পুনরায় ট্রেড লাইসেন্স দেওয়ার অনুমতি চার ব্যবসায়ী রেজা তাহের। সর্বশেষ বৃহস্পতিবার (১৮ নভেম্বর) কার্যালয়ে গিয়ে ট্রেড লাইসেন্স দাবি করলে অভিযুক্তরা ট্রেড লাইসেন্স না দেওয়ার কথা সাফ জানিয়ে দেন।

আইনজীবী আজাদ রহমান বলেন, এসব কারণে রেজা তাহেরের প্রায় ২৫ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে এবং ভবিষ্যতে আরও অপূরণীয় ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে তিনি দাবি করেছেন। এ অবস্থা থেকে প্রতিকার পেতে তিনি আজ দুপুরে আদালতে নালিশি মামলার আবেদন করেছেন। আদালত আবেদনটি পরবর্তী শুনানির জন্য রেখেছেন।

বরিশাল সিটি করপোরেশনের (বিসিসি) ট্রেড লাইসেন্স শাখার তত্ত্বাবধায়ক শহীদুল ইসলাম বলেন, বরিশাল শিল্পনগরীতে ৭৫টি শিল্পপ্রতিষ্ঠান আছে। তাদের তিন বছরের হোল্ডিং ট্যাক্স বকেয়া আছে। এ কারণে শিল্প নগরীতে ট্রেড লাইসেন্স প্রদান সাময়িকভাবে স্থগিত রয়েছে।

ব্যবসায়ী রেজা তাহেরের অভিযোগের বিষয়ে জানতে বিসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. ফারুক হোসেন এবং প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা বাবুল হালদারের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তারা বলেন, ব্যবসায়ী রেজা তাহেরের বিষয়ে তারা কিছু জানেন না। তবে এখন জানলেন। বিষয়টি তারা ট্রেড লাইসেন্স শাখায় খোঁজ নিয়ে দেখবেন।

এ বিষয়ে বিসিসি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহর সঙ্গে মোবাইল ফোনে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

spot_imgspot_imgspot_imgspot_img
এই বিভাগের আরও খবর
- Advertisment -

সর্বাধিক পঠিত

- Advertisment -