বিশ্ব গণমাধ্যমে বাংলাদেশের মেট্রোরেলের খবর

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

যানজটে নাকাল রাজধানী ঢাকায় চালু হওয়া প্রথম মেট্রোরেল বাংলাদেশিদের মাঝে আনন্দের এক উপলক্ষ্য তৈরি করেছে। বুধবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বহুল আকাঙ্ক্ষিত এই মেট্রোরেলের উদ্বোধন করেছেন; যা ঢাকার উত্তরা দিয়াবাড়ী থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত যাত্রীসেবা দেবে।

বাংলাদেশের উন্নয়নের অন্যতম এক মাইলফলক এই মেট্রোরেলের উদ্বোধন নিয়ে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের প্রভাবশালী গণমাধ্যমে বেশ গুরুত্বের সঙ্গে খবর প্রকাশ করা হয়েছে।

‘যানজটে-জর্জরিত রাজধানী ঢাকায় প্রথম মেট্রো লাইন চালু করল বাংলাদেশ’ শিরোনামে এক প্রতিবেদনে ফরাসি বার্তা সংস্থা এএফপি বলছে, বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকায় বুধবার প্রথম মেট্রোরেল লাইনের উদ্বোধন করা হয়েছে। স্থবির এই মেট্রোপলিটন শহরে যানজট হ্রাসের জন্য কাজ করছে কর্তৃপক্ষ। ঢাকার যানজটের কারণে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির গতি থমকে যাওয়ার কথাও উল্লেখ করেছে এএফপি।

প্রতিবেদনে এএফপি বলছে, বিশ্বের সবচেয়ে ঘনবসতিপূর্ণ শহরগুলোর একটি ঢাকা। শহরের ২ কোটি ২০ লাখ মানুষের প্রত্যেক দিনের যাতায়াতের ক্রমাগত হতাশার কারণ গাড়িতে ঠাসা এর রাস্তা।

স্থানীয় গবেষকরা বলছেন, যানজটের কারণে প্রত্যেক বছর ৩ বিলিয়ন ডলারের বেশি কাজের সময় ঢাকার রাস্তায় হারিয়ে যায়। আর প্রায়ই রাস্তায় দেখা দেওয়া বিক্ষোভ-প্রতিবাদ এবং বর্ষা মৌসুমের বৃষ্টি সেই পরিস্থিতিকে আরও খারাপ করে তোলে।

নতুন এলিভেটেড ট্রেন নেটওয়ার্কটি প্রায় এক দশক ধরে নির্মাণ করা হচ্ছে। আগামী ২০৩০ সালের মধ্যে এই মেট্রোরেলকে শতাধিক স্টেশন আর ছয় লাইনে উন্নীতকরণের কাজ শেষ হবে।

বুধবার জাপানের উন্নয়ন তহবিল জাইকার অর্থায়নে ঢাকার একাংশকে শহরের কেন্দ্রের সাথে সংযোগ করে প্রথম লাইনটি চালু করা হয়েছে। এই মেট্রোরেল নির্মাণ ব্যয় হয়েছে ২৮ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম ব্লুমবার্গও ঢাকার মেট্রোরেল উদ্বোধন নিয়ে একটি বিশেষ প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে বুধবার। এই প্রতিবেদনের শিরোনাম করা হয়েছে ‘প্রথম মেট্রো রেল পেল বিশ্বের সবচেয়ে জনবহুল শহরগুলোর একটি।’

ব্লুমবার্গ লিখেছে, বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকায় এখন প্রথম মেট্রো রেল রয়েছে। বিশ্বের অন্যতম যানজটপূর্ণ শহরটিতে মানুষের যাতায়াত সহজ করাই জাপানি অর্থায়নে পরিচালিত এই প্রকল্পের লক্ষ্য। বুধবার লাইন-৬ নামে পরিচিত ২০ কিলোমিটার রেল প্রকল্পের একাংশের উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

‘এই প্রকল্পটি ঢাকায় বসবাসরত মানুষের যোগাযোগ ব্যবস্থায় অনেক পরিবর্তন আনবে। সঙ্গে হাসিনার সরকারের অত্যন্ত প্রয়োজনীয় রাজনৈতিক ভাবমূর্তি বৃদ্ধি করবে। বাংলাদেশে ২০২৪ সালে সাধারণ নির্বাচন হওয়ার কথা রয়েছে। বর্তমানে হাসিনা ও তার দল রিজার্ভ কমে যাওয়া, মুদ্রাস্ফীতি এবং জ্বালানি সংকটের কারণে চাপে আছে।’

ঢাকাবাসীর বহুল আকাঙ্ক্ষিত মেট্রোরেলের উদ্বোধনের পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘এটি বাংলাদেশের উন্নয়নের নতুন মাইলফলক।’

বিশ্বব্যাংকের একটি প্রতিবেদনের তথ্য উল্লেখ করে ব্লমবার্গ লিখেছে, ‘৩০৫ বর্গ কিলোমিটারের শহর ঢাকায় ১ কোটি ৩০ লাখ মানুষের বসবাস। ১০ বছর আগে ঢাকায় যানবাহনের গতি ছিল ঘণ্টায় ২১ কিলোমিটার। সেখান থেকে তা কমে হয়েছে ৭ কিলোমিটার। কমতে কমতে এটি ৪ কিলোমিটারে নেমে যেতে পারে। যা হাঁটার চেয়েও ধীরগতি।’

ঢাকার মেট্রোরেল নিয়ে বিশ্বব্যাংকের দক্ষিণ এশিয়ার সাবেক প্রধান অর্থনীতিবিদ মার্টিন রমা বলেছেন, ‘ঢাকার মতো শহরের জন্য এটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ এক উন্নয়ন। আপনি যদি ভারতের বিভিন্ন শহরের দিকে তাকান দেখবেন মানুষের কাজে যাওয়ার যোগাযোগ পথে অনেক পরিবর্তন এসেছে। মেট্রোরেল যোগাযোগের নিরাপদ একটি বাহন। বিশেষ করে নারীদের জন্য। দক্ষিণ এশিয়ায় যা গতানুগতিক নয়।’

এএফপির প্রতিবেদন প্রকাশ করে ভারতের প্রভাবশালী দৈনিক টাইমস অব ইন্ডিয়া লিখেছে, বিশ্বের অন্যতম ঘনবসতিপূর্ণ শহর ঢাকায় প্রথম মেট্রোরেল চালু করা হয়েছে। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বুধবার এই মেট্রোরেল সেবার উদ্বোধন করেছেন।

ব্লুমবার্গের প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে ভারতের আরেক সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি। এই প্রতিবেদনে নতুন চালু করা মেট্রোরেল বাংলাদেশের ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকারের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করবে বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

সৌদি আরবের সংবাদমাধ্যম আল-আরাবিয়া বলছে, বিশ্বের অন্যতম যানজটপূর্ণ শহর ঢাকায় প্রথম মেট্রোরেল চালু করা হয়েছে। জাপানের অর্থায়নে বাংলাদেশের রাজধানীর যানজট নিরসনে নির্মিত মেট্রোরেলের একাংশ চালু করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই মেট্রোরেল চালুর পর প্রথম যাত্রী হিসেবে ভ্রমণও করেছেন।

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বাংলা দৈনিক আনন্দবাজার ‘যানজট থেকে মুক্তি, ঢাকায় শুরু মেট্রো পরিষেবা, সবুজ পতাকা নেড়ে উদ্বোধন শেখ হাসিনার’ শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। এতে বলা হয়েছে, ঢাকায় শুরু হয়ে গেল মেট্রোরেল পরিষেবা। সবুজ পতাকা নেড়ে পরিষেবার সূচনা করলেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বোনকে নিয়ে নিজে টিকিট কেটে চেপে বসলেন ট্রেনেও।

আনন্দবাজার লিখেছে, বুধবার স্থানীয় সময় দুপুর ১টা ৪০ মিনিট নাগাদ ঢাকার দিয়াবাড়ি (উত্তরা) স্টেশন থেকে সবুজ পতাকা নেড়ে মেট্রো পরিষেবার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী। তার আগে বোন রেহানাকে নিয়ে কিনে ফেলেন দু’টি টিকিট। দিয়াবাড়ি স্টেশন থেকে মেট্রো ছুটবে আগারগাঁওয়ের দিকে। বোনকে সঙ্গে নিয়ে প্রথম সেই যাত্রার সওয়ারি হন প্রধানমন্ত্রী হাসিনা।

এছাড়াও বাংলাদেশের প্রথম মেট্রোরেল উদ্বোধনের খবর প্রকাশ করেছে সিঙ্গাপুরের ইংরেজি দৈনিক দ্য স্ট্রেইটস টাইমস, ভারতের বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড, পাকিস্তানের উর্দু পয়েন্টসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের গণমাধ্যম।

এই ওয়েবসাইটের সকল লেখার দায়ভার লেখকের নিজের, স্বাধীন নিউজ কতৃপক্ষ প্রকাশিত লেখার দায়ভার বহন করে না।
এই বিভাগের আরও খবর
- Advertisment -

সর্বাধিক পঠিত

- Advertisment -