ভারত ও বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক সীমান্তে তেমন ভাবে সক্রিয় নয় বিচ্ছন্নতাদী কেএলও। বললেন বি এস এফ আই জি শ্রী রবি গান্ধী।

0
41

কলকাতা থেকে বুরোপ্রধান মনোয়ার ইমাম।

যতটা হাকডাক দিয়ে বাজার গরম করতে চাইছে উড়ো হুমকি দিয়ে কামতাপুরী আন্দোলন নেতা জীবন সিঙ, বাস্তবে ততটা প্রভাব বিস্তার করতে পারেনি ভারত ও বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক সীমান্তে। সম্প্রতি কামতাপুরী আন্দোলন নেতা জীবন সিঙ পশ্চিম বাংলার কোচবিহার জেলা ও অসমের কিছু জেলা ও বিহারের কিশানগঞ্জ এবং মেঘালয়ের কিছু অংশ এবং বাংলাদেশের রংপুর জেলা এবং পশ্চিম বাংলার উত্তর বঙ্গ কে নিয়ে আলাদা রাস্ট্র গঠনের ডাক দিয়েছেন মায়ানমারের ও বাংলাদেশ এবং অসমের গভীর জঙ্গলে বসে। সেখান থেকে আলফা ও নাগাল্যান্ড পিপিপুলস ফ্রন্ট, আইজ্যাক মুইভা নাগাল্যান্ড এবং বড়ো ল্যান্ড এর মতো বিচ্ছন্নতাদী দলের সাথে এক হয়ে তারা লড়াই করে ভারত থেকে আলাদা কামতাপুরী রাস্ট্র করার ডাক দিয়েছেন। সম্প্রতি কোচবিহারের পশ্চিম বাংলার শাসকদলের নেতা শ্রী পাথ প্রতিম রায় ও পশ্চিম বাংলা সরকারের সাবেক বনমন্ত্রী শ্রী বিনয়কৃষ্ণ বরমন কে হুমকি দিয়ে চিঠি লেখেন। যা নিয়ে নড়েচড়ে বসে ভারতের সামরিক বাহিনীর সদস্যরা ও ভারতের বি এস এফ এবং সি আই এস এফ এর জওয়ানরা এবং পশ্চিম বাংলা সরকারের পুলিশের মধ্যে আলোচনা হয়েছে। তার পরিপ্রেক্ষিতে ভারতের সীমান্ত রক্ষী বাহিনীর দক্ষিণ বঙ্গের আই জি শ্রী রবি গান্ধী আই পি এস সাথে বাংলাদেশের সীমান্ত রক্ষী বাহিনীর সদস্যদের মধ্যে জরুরি ভিত্তিতে বৈঠক হয়। সেই বৈঠকে উঠে এসেছে কে এল ও প্রসঙ্গ। তবে সবদিক থেকে সতর্ক থাকতে চায় ভারতের সামরিক বাহিনীর সদস্যরা।সেই সঙ্গে ভারতের সামরিক বাহিনীর গোয়েন্দাদের সাথে পশ্চিম বাংলার গোয়েন্দা বিভাগের দক্ষ অফিসাররা নজরদারি শুরু করেছে।।