advertisement

মাধবপুরে বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে মহান বিজয় দিবস উৎযাপন

মোহাম্মদ শাহজাহান মিয়া, হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি :

হবিগঞ্জের মাধবপুরে যথাযোগ্য মর্যাদায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে বিভিন্ন অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে উৎসব মুখর পরিবেশে ১৬ ডিসেম্বর, মহান বিজয় দিবস ও বিজয় সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপিত হয়েছে।

১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবস ও বিজয় সুবর্ণজয়ন্তী উৎযাপন উপলক্ষ্যে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে বৃহস্পতিবার (১৬ ডিসেম্বর) ভোরের প্রথম প্রহরে মাধবপুর উপজেলার পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় সংলগ্ন মাঠে ৫০বার তোপধ্বনির মাধ্যমে বিজয় দিবসের শুভসূচনা ও সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন অনুষ্ঠান শুরু করেন মাধবপুর থানা পুলিশ। পরে সকল সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠান এবং বেসরকারি ভবন সমূহে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়।

পরবর্তীতে সকাল ৮ টার দিকে উপজেলা প্রশাসন, আওয়ামীলীগ ও এর অংগসংগঠন, উপজেলা বিএনপি নেতৃবৃন্দ, মাধবপুর প্রেসক্লাব, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ও মুক্তিযোদ্ধা সন্তান সংসদ, পুলিশ প্রশাসন, বিভিন্ন সংগঠন ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে পৃথক ভাবে উপজেলা চত্বরে শহীদ মিনারে পুস্পস্তবক অর্পণ করা হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সুফিয়া আক্তার হেলেন, পৌর মেয়র  আলহাজ্ব মোঃহাবিবুর রহমান মানিক  উপজেলা নির্বাহী অফিসার শেখ মঈনুল ইসলাম মঈন, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ মহিউদ্দিন, মাধবপুর থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মুহাম্মদ আব্দুর রাজ্জাক ও উপজেলার বিভিন্ন দপ্তরের প্রধানগন, বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের স্থানীয় নেতৃবৃন্দ, সাংবাদিকবৃন্দ, সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা কর্মচারীবৃন্দ, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক বৃন্দ ও বিভিন্ন শ্রেণীপেশার ব্যাক্তিবর্গ।

পুস্পস্তবক অর্পণ শেষে সকাল সাড়ে ৮.৩০ টার দিকে মাধবপুর পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে কোরআন তেলাওয়াত ও গীতা পাঠের মাধ্যমের বিজয় দিবসের কার্যক্রম শুরু হয়। পরে মাধবপুর থানা পুলিশ ও আনসার বাহিনী সমন্বয়ে বর্ণাঢ্য এক কুচকাওয়াজ ও শিশু কিশোর সমাবেশ ও শরীরচর্চা প্রদর্শনী, বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা সভা এবং এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সকাল ১১.০০ তেলিয়াপাড়া স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়।

দুপুর ২ টার দিকে নামাজের পর বিভিন্ন মসজিদ, মন্দির ও বিভিন্ন ধর্মীয় উপাসনালয়ে জাতির শান্তি, সমৃদ্ধি ও অগ্রগতি কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়। মোনাজাত শেষে বিভিন্ন হাসপাতাল ও এতিম খানায় উন্নতমানের খাবারের বিতরণ করেন, পরে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী এবং মুজিববর্ষের শপথ বাক্য পাঠ অনুষ্ঠিত হয়।

spot_imgspot_imgspot_imgspot_img
এই বিভাগের আরও খবর
- Advertisment -spot_img

সর্বাধিক পঠিত