মাহমুদউল্লাহর অবসর প্রভাব ফেলেনি ক্রিকেটারদের মনে 

0
13

নিজস্ব প্রতিবেদক

বিদায় বলা সহজ কাজ নয়। কঠিন ওই কাজটিই সাবলীলভাবে করলেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। সীমিত ওভারের বাকি দুই ফরম্যাটে খেললেও হঠাৎ টেস্ট ক্রিকেটকে বিদায় বলে দিয়েছেন তিনি। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে মাহমুদউল্লাহর বিদায়ী টেস্ট নিয়ে আসলে কি ঘটেছিল, সেটি এখনো সামনে আসেনি। ওয়ানডে সিরিজের আগে সেই ঘটনা কতটুকু প্রভাব ফেলেছে বাংলাদেশ দলের ড্রেসিংরুমে?

আগামীকাল (শুক্রবার) থেকে শুরু হচ্ছে বাংলাদেশ বনাম জিম্বাবুয়ের মধ্যকার তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ। তার আগে এই ফরম্যাটের অধিনায়ক তামিম ইকবাল জানালেন, এনিয়ে মোটেও চিন্তা নেই টাইগার শিবিরে। হতাশ হওয়ারও কিছুই দেখছেন না তামিম। দলের পারফরম্যান্সেই মনোযোগ পুরো দলের।

বৃহস্পতিবার ভার্চুয়াল প্রেস কনফারেন্সে তামিম বললেন, ‘না, আমার কাছে মোটেও এমন মনে হয়নি। এটা একজনের ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত, সম্মান জানাতে হবে। এখানে হতাশ হওয়ার কোনো কিছু নেই। আমরা এ ব্যাপারে খুব বেশি কথা বলতে চাই না। রিয়াদ ভাই আমাদের দলের গুরুত্বপূর্ণ সদস্য। আমরা এখন দলের পারফরম্যান্সেই মনোযোগ রাখছি।’

সঙ্গে যোগ করেন তামিম, ‘এটা শুধু বলার জন্য বলছি না। আমাদের সাথে থাকলে বুঝতেন আসলেই এটা নিয়ে আমরা এক ফোটা চিন্তিতও না। এটা নিয়ে নতুন করে কিছু বলার নেই আর সামনেও বলার কিছু থাকবে না। যা হওয়ার হয়ে গেছে।’

এদিকে টেস্ট সিরিজের পর অনুশীলনে খুব বেশি দেখা যায়নি মাহমুদউল্লাহকে। দুদিনের অনুশীলনে এক সেশনে উপস্থিত ছিলেন তিনি। খেললেননি একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচেও।

এনিয়ে অবশ্য দুশ্চিন্তা করতে বারণ করলেন তামিম, ‘টেস্টে পাঁচটা দিন খুব কষ্ট করতে হয়েছে। এজন্য টেস্ট ম্যাচের পরের দিন কেউ অনুশীলনে যায় না, যদি না টেস্ট ম্যাচটা কারও খুব খারাপ যায়। অনুশীলন ম্যাচের সময় উনি বিশ্রাম নিতে চেয়েছেন বা আলাদাভাবে বিশেষ কোনো কাজ করতে চান। কাল অনেক লম্বা সময় নেটে অনুশীলনও করেছেন। এটা তাই উনার ব্যক্তিগত ইচ্ছা ছিল। তবে কোনো সমস্যা নেই, সবকিছু ঠিকাছে।’