মোহনগঞ্জের হাওরপাড় থেকে জাতীয় পর্যায়ে শহীদ স্মৃতি মহাবিদ্যালয় এর রোভাররা।

0
33

মোহনগঞ্জ প্রতিনিধিঃ

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে বাংলাদেশ স্কাউটস রোভার অঞ্চল আয়োজিত বিভাগীয় পর্যায়ে বিতর্ক প্রতিযোগিতায় প্রথমস্থান অর্জন করেছে নেত্রকোণা জেলার মোহনগঞ্জ উপজেলা ৬নং ইউনিয়ন আদর্শনগরের শহীদ স্মৃতি মহাবিদ্যালয়।

মহাবিদ্যালয়টি উপজেলা পর্যায় থেকে জেলা পর্যায়ে গত ১৭ জুন অনুষ্ঠিত বিতর্ক প্রতিযোগিতায় প্রথম রাউন্ডে কেন্দুয়া সরকারি কলেজ ও দ্বিতীয় রাউন্ডে নেত্রকোণা সরকারি মহিলা কলেজকে পরাজিত করে বিভাগীয় পর্যায়ে উন্নিত হয়।

তারপর বিভাগীয় পর্যায়ে গত ৯ সেপ্টেম্বর প্রথম রাউন্ডে, অরুণোদয় মুক্ত রোভার দল (জামালপুর জেলা) এবং এই শনিবার শনিবার চূড়ান্ত পর্যায়ে ময়মনসিংহ ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজকে পরাজিত করে বিভাগীয় চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করে।

এখন জাতীয় পর্যায়ে ময়মনসিংহ বিভাগ থেকে প্রতিনিধিত্ব করবে শহীদ স্মৃতি মহাবিদ্যালয়। এই মহাবিদ্যালয়টি সাবেক গণপরিষদ সদস্য, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, শিক্ষানুরাগী এবং একজন প্রবীণ রাজনীতিবিদ মরহুম ডাক্তার আখলাকুল হুসাইন আহমেদের সুযোগ্য সন্তান, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সাবেক সিনিয়র সচিব, বর্তমান বিমান পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান সাজ্জাদুল হাসানের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় ২০১৫ সালে প্রতিষ্ঠা করা হয়। প্রতিষ্ঠার পর থেকেই শিক্ষা, সংস্কৃতি, স্কাউট সহ বিভিন্ন প্রতিযোগীতায় সুনামের সঙ্গে কৃতিত্ব অর্জন করে আসছেন কলেজটি।

নেত্রকোণা জেলার জেলা প্রশাসক ও শহিদ স্মৃতি মহাবিদ্যালয়ের সভাপতি কাজী আবিদুর রহমান জানান, হাওর অঞ্চলের আলোকবর্তিকা শহিদ স্মৃতি মহাবিদ্যালয়। সবক্ষেত্রে এটি আলো ছড়িয়ে যাচ্ছে। বিভিন্ন বিষয়ে ছাত্রছাত্রীরা সাফল্য বয়ে আনছে। আমি তাদের মঙ্গল কামনা করি।

কলেজটির সার্বক্ষণিক তদারকি করা মোহনগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাব্বির আহমেদ আকুঞ্জি জানান, হাওর পাড়ের প্রত্যন্ত অঞ্চলে এরকম একটি কলেজ অনন্য নজির স্থাপন করবে বলে আমার প্রতাশ্যা। ইতিমধ্যে কলেজটি নেত্রকোণা জেলায় অনেক সুনাম অর্জন করেছে। শহিদ স্মৃতি মহাবিদ্যালয়ের স্কাউট টিম তাদের যোগ্যতা ও মেধা দিয়ে বিভাগীয় পর্যায়ে জায়গা করে নিয়েছে। আশা করি জাতীয় পর্যায়েও তারা আরো ভালো কিছু করবে।

মোহনগঞ্জ সমিতি ময়মনসিংহয়ের সাধারণ সম্পাদক সুমন হাবিবসহ অনেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে রোভার স্কাউটস টিমকে শুভেচ্ছা জানায়।

অত্র কলেজের শিক্ষক আশরাফ খান বলেন, সাজ্জাদুল হাসান স্যার এই কলেজটিকে অনন্য উচ্চতায় দেখার স্বপ্ন দেখেন, যেখান থেকে প্রত্যন্ত অঞ্চলের শিক্ষার্থীরা তাদের আলো ছড়িয়ে দিবে দেশ বিদেশে। আমরা স্যারের স্বপ্নকে অন্তরে ধারণ করে যাচ্ছি। সব শিক্ষার্থীদের প্রতি শুভ কামনা নিরন্তর। এই প্রতিযোগীতায় অংশগ্রহণকারী চার শিক্ষার্থী হলেন- হিমা আক্তার, সাকিনা আক্তার, প্রিয়ন্তী আলম ঋতু। তাদের মধ্যে শ্রেষ্ঠ বক্তা হিসাবে মনোনীত হন প্রিয়ন্তী আলম ঋতু।