রাংগুনিয়ায় কর্ণফুলীর তীরে আবর্জনার স্তুপ।

0
7

মোঃ মেহেদী হাসান, রাংগুনিয়া উপজেলা প্রতিনিধি :

শুধু চট্টগ্রাম নয় পুরো বাংলাদেশের জন্য কর্ণফুলী নদী কতটা গুরুত্বপূর্ণ সেটা সকলেরই অবগত।শুধু অর্থনৈতিক সমৃদ্ধিই নয় একটু মানসিক প্রশান্তির সন্ধান যদি কেউ করে,তাহলে তাকে সেই মানসিক প্রশান্তি কর্ণফুলীর নির্মল বাতাসে পাওয়া যাবে।

কর্ণফুলী নদীর যে অংশটুকু রাংগুনিয়া উপজেলার মধ্য দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে তা রাংগুনিয়াকে বিভক্ত করে জীবনমানে দিয়েছে অন্যরকম তৃপ্তি।

কর্ণফুলীর দক্ষিণ তীরের মানুষদের যাতায়াত সুবিধায় রয়েছে সরফভাটা এলাকার উপর দিয়ে নির্মিত একটি ব্রীজ।

তবে শিলক,কোদালা ও পদুয়া ইউনিয়নের বেশির ভাগ পার হয় নদী পথে,নৌকায় বা ফেরী করে।

কিন্তু নদী পারাপারের এই মনোমুগ্ধকর পরিবেশ কেড়ে নিচ্ছে আবর্জনা।

শিলক নদীর ঘাট থেকে পার হয়ে মরিয়মনগর পার হতে চোখে পড়ে নদীর তীরে ময়লার স্তূপে ভরে আছে।যা গড়িয়ে পড়ছে নদীতে।

কিন্তু একটা সময় ছিল সে জায়গাটা খুবই পরিষ্কার ছিল,কিন্তু এখন প্রতিনিয়তই জায়গাটা হারাচ্ছে ব্যবহার যোগ্যতা।

কারা দায়ী এর জন্য?
সে প্রশ্নের উত্তর হয়তো সকলেই জানি কিন্তু তবুও আমরা নদী বাঁচাতে কতটা সচেতন?