রাজবাড়ীতে শান্তিপূর্ণভাবে প্রতিমা বিসর্জন 

আলামিন হোসেন শাকির
রাজবাড়ী প্রতিনিধিঃ
রাজবাড়ীতে বিজয়া দশমী ও প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে গতকাল বুধবার শেষ হয়েছে হিন্দু সম্প্রদায়ের প্রধান ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা।
গতকাল বুধবার সকাল ৮টা ৫০ মিনিটের দর্পণ বিসর্জন এর মাধ্যমে বিদায় জানানো হয় দেবী দুর্গাকে। পরে সন্ধ্যা ৬টা থেকে শুরু হয় প্রতিমা বিসর্জন।
সনাতন ধর্মালম্বীদের বিশ্বাস, মানুষের মনের আসুরিক প্রবৃত্তি কাম, ক্রোধ, হিংসা, লালসা বিসর্জন দিয়েই মূলত বিজয়া দশমীর মূল তাৎপর্য। এ প্রবৃত্তিগুলো বিসর্জন দিয়ে একে অন্যের সঙ্গে বন্ধুত্ব আবদ্ধ হয়ে বিশ্বে শান্তি প্রতিষ্ঠা করাই এই আয়োজনের উদ্দেশ্য।
চন্ডীপাঠ, বোধন ও অধিবাসের মধ্য দিয়ে ষষ্ঠী তিথিতে আনন্দময়ীর আগমনে গত ১লা অক্টোবর থেকে দেশের হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গা উৎসবের সূচনা হয়। পরবর্তী ৫ দিন পূজামণ্ডপগুলোতে পূজা-অর্চণার মধ্য দিয়ে ভক্তরা দেবী দুর্গার প্রতি শ্রদ্ধার্ঘ্য নিবেদন করেন। দশমী তিথিতে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে তা শেষ হয়।
এবার দেবী দুর্গার জগতের মঙ্গল কামনায় গজে হাতি চড়ে মর্ত্যালোকে পৃথিবীতে আসেন। এতে প্রাকৃতিক বিপর্যয় ঝড়-বৃষ্টি হবে এবং শস্য ও ফসল উৎপাদন বৃদ্ধি পাবে। অন্যদিকে স্বর্গে বিদায় নেন নৌকায় চড়ে। যার ফলে জগতের কল্যাণ সাধিত হবে।
সনাতন ধর্মের বিশ্বাস অনুযায়ী, বিসর্জনের মধ্য দিয়ে দেবী ফিরে গেলেন স্বর্গলোকের কৈলাসে স্বামীর ঘরে। পরের বছর শরতে আবার তিনি আসবেন এই ধরণীতে যা তার বাবার গৃহে। প্রতিমা বিসর্জনের জন্য সব ধরনের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী  বাহিনী। ঢাকের বাদ্য আর গান বাজনা ছাড়া বিদায়ের করুন ছায়ায় বিসর্জন দেয়া হয় প্রতিমা।
এবছর রাজবাড়ী জেলাসহ সারা দেশে ৩২ হাজার ১৬৮ টি মন্দিরে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হয়।
spot_imgspot_imgspot_imgspot_img
এই বিভাগের আরও খবর
- Advertisment -

সর্বাধিক পঠিত

- Advertisment -