রাস্তার দু পাশে তাল গাছ ফিরে পেয়েছে নিয়ামতপুর বাসী।

0
29

সাব্বির হোসেন ,নিয়ামতপুর (নওগাঁ) প্রতিনিধি:

কালের বিবর্তনে তাল গাছ হারিয়ে গেলেও নওগাঁর নিয়ামতপুরে ৷ এখনো কালের সাক্ষী হয়ে শত শত তালগাছের সারি রাস্তার দুই ধারে সৌন্দর্যব্ধন করে যাচ্ছে ৷

নিয়ামতপুর উপজেলার হাজিনগর ইউনিয়নের ছোট একটি গ্রাম ‘ ঘুঘুডাঙ্গা ‘ ৷ হাজিনগর গ্রাম থেকে ঘুঘুডাঙ্গা গ্রামে যাওয়ার পথে হাজিনগরের মজুমদার মোড় থেকে ঘুঘুডাঙ্গা পর্যন্ত দুই কিলোমিটার রাস্তায় দুই ধারে প্রায় ছয়শ’ তালগাছ দাঁড়িয়ে আছে ৷ প্রতিদিন শত শত বৃক্ষপ্রেমী ও ভ্রমন পিয়াসী আসেন এই তাল গাছ দেখতে ৷
স্থায়ী সূত্রে জানা গেছে , ঠাঠা বরেন্দ্র ভূমি নিয়ামতপুর , সাপাহার ও পোরশা পানির সংকটের মধ্যেও আগে প্রচুর বড় বড় তালগাছ মাথা উঁচু করে দাড়িয়ে ছিল ৷ কিন্তু মানুষের প্রয়েজনে সেগুলো কেটে ফেলেন ৷ এক সময় তালগাছ হারিয়ে গিয়েছিল ৷ বর্তমানে আবার ফিরে এসেছে ৷
নিয়ামতপুর হাজিনগর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান এবং বর্তমান নওগাঁ জেলার নওগাঁ-১ আসনের আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ও মন্ত্রি পরিষদের সদস্য সাধন চন্দ্র মজুমদার ৷ ১৯৮৩ সালে পরিষদের দায়িত্ব পালন কালে হাজিনগরের মজুমদার মোড় থেকে দুই কিলোমিটার রাস্তার দুই ধারে প্রায় সাতশ’ তালগাছ রোপন করেন ৷ বেশ কিছু গাছ বিভিন্ন ভাবে মারা গেলেও প্রায় ছয়শ’ তালের গাছ বেচে আছে৷ আজও সেই তালগাছ গুলো বর্তমানে ৫০থেকে ৬০ ফিট লম্বা হয়ে কালের সাক্ষী হয়ে রাস্তার দুই ধারে শোভাবন্ধ করে এক পয়ে দাড়িয়ে আছে ৷

হাজিনগর ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক বলেন,আমাদের ইউনিয়ন পরিষদ ভবন ঘুঘুডাঙ্গা গ্রামে৷আমি যখন ঘুঘুডাঙ্গা গ্রামে যাই তখন ঐ তালগাছ সমৃদ্ধ ৷ রাস্তায় আসলে নিজেকে অন্য রকম মনে হয় ৷এবং বলেন সরকারের পাশাপাশি স্থানীয় জনগনকে তালগাছ রোপনে এগিয়ে আসতে হবে ৷