advertisement

লণ্ডভণ্ড কেনটাকি, নিহত একশো ছাড়ানোর আশঙ্কা

স্বাধীন নিউজ ডেস্ক

যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় অঙ্গরাজ্য কেনটাকিতে গত শুক্রবার গভীর রাতে হওয়া প্রলয়ঙ্কারী টর্নেডোয় নিহতের সংখ্যা একশোর কাছাকাছি পৌঁছেছে। প্রবল ঝড়ে রাজ্যের বিভিন্ন এলাকা লণ্ডভণ্ড হয়ে গেছে। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে আরো পাঁচটি অঙ্গরাজ্য।

মার্কিন সংবাদমাধ্যমসহ আন্তর্জাতিক বিভিন্ন গণমাধ্যমে এ খবর জানানো হয়েছে। প্রতিবেদনগুলোয় বলা হয়, গত শুক্রবার রাতে ও শনিবারের প্রথম প্রহরে শক্তিশালী টর্নেডোর আঘাতে লণ্ডভণ্ড হয়ে গেছে কেনটাকি অঙ্গরাজ্য। এতে একশজনের মৃত্যুর আশঙ্কা করা হচ্ছে।

সিএনএন’র খবরে বলা হয়েছে, টর্নেডোর আঘাতে কেনটাকি রাজ্যে ৮৪ জনের বেশি মারা গেছেন। গভর্নর অ্যান্ডি বেশিয়ার বলেছেন, রাজ্যের ইতিহাসে সবচেয়ে ভয়াবহ সময় পার হচ্ছে। ৭০ জন বাসিন্দার মৃত্যু হয়েছে। নিহতের সংখ্যা আরো বেড়ে একশোর কাছাকাছি পৌঁছাতে পারে।

তিনি আরো বলেন, মেফিল্ড শহরের ৩৬৫ কিলোমিটার এলাকা প্রায় লণ্ডভণ্ড হয়ে গেছে। এটি অবর্নণীয় ঘটনা। বিভিন্ন শিল্প প্রতিষ্ঠানের ভবন ও ছাদ ধসে গেছে।

ইলিনয় রাজ্যে ছয়জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত হওয়া গেছে। টেনেসি অঙ্গরাজ্যে চারজন, মিসৌরি ও আরকানসাসে দুজনের মৃত্যুর খবর দিয়েছে সিএনএন।

বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, কেনটাকিতে শুক্রবার রাতে ঝড়ের আঘাতে নিহতের সংখ্যা ৭০ জনের বেশি। জরুরি উদ্ধারকারী দলগুলো দুটি কারখানার ধ্বংসস্তূপে অনুসন্ধান চালাচ্ছে। একটি কারখানায় অভিযান চালিয়ে ১১০ জনের মধ্যে ৪০ জনকে উদ্ধার করা হয়েছে। ইলিনয়ের আমাজন গুদামে ছয়জন ও রাজ্যের অন্যান্য এলাকায় ১২ জনের মৃত্যু হয়েছে। রাজ্যের কয়েক হাজার মানুষ বিদ্যুৎ ও পানিহীন অবস্থায় রয়েছে বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

টর্নেডোতে বিধ্বস্ত রাজ্যটির কেন্দ্রীয় এলাকাগুলোর সহায়তায় সম্ভাব্য সবকিছুই করা হবে বলে জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

spot_imgspot_imgspot_imgspot_img
এই বিভাগের আরও খবর
- Advertisment -spot_img

সর্বাধিক পঠিত