শরিয়তপুর জেলায় ক্ষমতার অপব্যবহার করে অন্যের জমি দখলের চেস্টা

0
204

শরিয়তপুর

এবি এম জিয়াউল হক টিটু

নড়িয়ায় ফতেজংজ্ঞ পুর ইউনিয়নে সাতপাড় গ্রামে এমন একটি অভিযোগ এসেছে । মোঃ হালিম কাজী (৬০)পিতা মৃত আব্দুর জব্বার কাজী দাবী করেন তাহার দাদার রেখে যাওয়া সম্পত্তি আমরা পাচ ভাই ভোগ করতেছি । পাচ ভাইয়ের মধ্যে চার ভাই প্রবাসে থাকি ,বাড়িতে মা সহ চার বউ বসবাস করছেন। এই সুযোগে বাড়ির দক্ষিনে এবং পুর্ব পাশে নিজের ইচ্ছেমত সিমানা নির্ধারণ করে মাটি কাটা সহ জায়গা জোর করে ভোগ করছেন । এবং মাটি কাটছেন গোলাম মোস্তফা (চুন্নু) খন্দকার (৭০) হালিম কাজী দাবী করছেন তার এবং ভাইদের অনুপস্থিতে জায়গা মেপে নিজের মতো করে সিমানা নির্ধারণ করেন চুন্নু খন্দকার এবং কাউকে কিছু না বলে পুকুরের মাটি কাটা শুরু করেন।
আমরা কাজে বাধা দিলে আমাদের দিকে দেশী দা নিয়ে আগিয়ে আসেন,এবং সে মুক্তিযোদ্ধা বলে হুমকি প্রদান করেন । অল্প কথার মাঝেই তিনি গালিগালাজ করেন বাড়িতে থাকা মা ও বউদের সাথে। তিনি আরও বলেন চুন্নু খন্দকার হিন্দুদের খাস জমি দখল নিয়ে এখানে বসবাস করছেন। তার সাথে তার বাড়ির চারপাশ থাকা কারো সাথে সম্পক ভালো নেই শুধু তার ব্যাবহারে । আমরা আমাদের জায়গায় ঘর উঠানোর জন্য মাটি ভরাট করি সেখানে এসে বাশ এবং সিমেন্ট খুটি পাইলিং ভেংজ্ঞে নিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে চুন্নু খন্দকার বলেন আমি জায়গা মাপার সময় স্থানীয় চেয়ারম্যান ও স্থানীয় মেম্বার সহ হালিম কাজীর ভাই উপস্থিতিতে আমিন দিয়ে জায়গা নির্ধারণ করি এবং সিমানা খুটি দিয়ে থাকি । আমি আমার জায়গার মাটি কাটার জন্য লেবার নিয়েছি কাজ চলাকালীন সময়ে কাজী বাড়ী থেকে হালিম কাজী বাধা প্রদান করেন। এক পর্যায়ে কথা কাটি হয়ে ঝগরায় পরিনত হয় তারা আমাকে গালিগালাজ করেছে আমিও করেছি তারাও লাঠি নিয়ে এসেছে আমিও এসেছি ।
এ ব্যাপারে হালিম কাজী নড়িয়া থানায় একটি সাধারণ ডায়রি করেন এবং নড়িয়া থেকে এ এস আই বিস্বজিৎ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং উভয়কে আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় শান্ত থাকার জন্য বলেন।