শরিয়তপুর জেলায় নড়িয়া উপজেলায় নিজের ক্ষেতের পাকা ধান রক্ষায় রক্তাক্ত

0
147

শরিয়তপুর

এবি এম জিয়াউল হক টিটু

নড়িয়া উপজেলায় চামটা ইউনিয়নে তেলিপাড়া ১ নং ওয়ার্ডে নিজের ক্ষেতের পাকা ধান রক্ষা করতে গিয়ে প্রতিপক্ষের হাতে রক্তাক্ত হয়। মিলন মন্ডল (৪০) পিতা নিরঞ্জন মন্ডল অভিযোগ করে বলেন। আমাদের বাড়ির সামনে (৩২) শতাংশ জমিতে আমি বুরো ধান চাষাবাদ করি প্রতি বছর । বৈশাখ মাসে শেষে ধান কাটা শুরু হয়
আমার ধান কাটার মাত্র দু দিন বাকী এমতাবস্থায় আমার পাশের বাড়ি মোরশেদ শেখ ,সুলাইমান শেখ,বিল্লাল শেখ উভয়ের পিতা মৃত আব্দুল মজিদ শেখ ।

তারা (৪০ থেকে ৪৫) টি হাস পালন করেন তাদের অনেক বার বলা হয়েছে ধান কাটার সময় হয়েছে হাসে ধান খেয়ে ফেলে এবং ছিরে নিচে ফেলে দেয় । তোমাদের হাস গুলো দুই দিনের জন্য বেধে রাখিও দুই দিন বলেছি তিন দিনের মাথায় আমি ক্ষেতের সামনে গিয়ে দেখি আমার ক্ষেতে সব গুলো হাস । আমি হাস গুলি তাড়িয়ে দিয়েছি কোন রকম ক্ষতি ছাড়া এমতাবস্থায় ওরা তিন ভাই এসে আমাকে রাস্তার ইট দিয়ে এলোপাথারী পিটায় আমার শরিল রক্তে ভেসে যায়। এর পর আমার স্ত্রী ছুটে এলে তাকেও মারধর করে শরিলের কাপড় টেনে হেসড়ে খুলে ফেলে এর পর এলাকার লোকজন তারাতারী করে শরিয়তপুর সদর হসপিটাল নিয়ে যায় । এ ব্যাপারে নড়িয়া থানায় একটি অভিযোগ করা হয়েছে ,

বিবাদী মোরশেদ শেখের বাড়িতে গেলে তাদের কাউকে বাড়িতে পাওয়া যায়নি এবং মোবাইলে বার বার ফোন করে ও কোন কথা জানা যাইনি । এ ব্যাপারে নড়িয়া থানা অফিসার ইনচার্চ (ওসি) অবনি শংকর বলেন আমরা অভিযোগ পেয়েছি ঘটনা তদন্ত চলছে তদন্ত শেষে ব্যাবস্থা করা হবে।