সাংবাদিক রোজিনার মুক্তির দাবীতে লালপুরে সাংবাদিকদের মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা

0
49

এস ইসলাম, নাটোর জেলা প্রতিনিধি।

সাংবাদিক রোজিনা ইসলামের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরসহ কারাগারে প্রেরনের প্রতিবাদে এবং তার নিঃশর্ত মুক্তির দাবীতে লালপুরে মানববন্ধন করেছে সাংবাদিকরা ।

বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা থেকে ১১টা পর্যন্ত লালপুর ত্রিমোহিনী চত্বর এলাকায় এই মানববন্ধন কর্মসুচী পালন করা হয়। এই কর্মসুচীতে একাত্মতা জানিয়ে বিভিন্ন পেশাজীবি প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরাও কর্মসুচীতে অংশ নেন। কর্মসুচীতে উপজেলায় কর্মরত বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রিনিক্স মিডিয়ার সাংবাদিক,সুশিল সমাজ সহ এলাকার গর্ণমান্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন। মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন , লালপুর উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি আব্দুল মোতালেব রায়হানের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন দৈনিক প্রাপ্তি প্রসঙ্গের সম্পাদক অধ্যক্ষ ইমাম হাসান মুক্তি, লালপুর উপজেলা প্রেসক্লাবের সহ সভাপতি ও দৈনিক যুগান্তর পত্রিকা লালপুর উপজেলা প্রতিনিধি প্রভাষক সাহীন ইসলাম, পদ্মা প্রবাহের সম্পাদক প্রভাষক মোজাম্মেল হোসেন, জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা নাটোর জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক সালাউদ্দিন, একে আজাদ সেন্টু, দৈনিক নয়াদিগন্ত লালপুর প্রতিনিধি এহসানুল করিম তুহিন, দৈনিক যায়যায়দিন লালপুর উপজেলা প্রতিনিধি মাজহারুল ইসলাম লিটন, মাজহারুল ইসলাম তিব্বত, জামিরুল ইসলাম মাষ্টার, লালপুর উপজেলা প্রেসক্লাবের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল মামুন, ফারহানুর রহমান রবিন, দপ্তর সম্পাদক জামিল হোসেন, সদস্য প্রভাষক আলমাচ হোসেন, প্রভাষক ফেরদৌস রহমান মনি, রুবেল হোসেন, আব্দুল্লাহ আল মামুন, সাব্বির আহমেদ মিঠু, সজিবুল ইসলাম রিদয়, রাসেল আহমেদ প্রমুখ।

সাংবাদিকরা বলেন, হামলা ও মামলা দিয়ে সাংবাদিকদের দমিয়ে রাখা যাবেনা। গণমাধ্যমকে গলা টিপে হত্যা করা যাবেনা। সাংবাদিক তাদের লিখনীর মাধমে সমাজের সকল দূর্নীতি তুলে ধরবেই। কোন ভাবেই তারা পিছু হটবেনা। দ্রুত রোজিনা ইসলামকে নিঃশর্তে মুক্তি না দিলে কঠোর থেকে কঠোরতম আন্দোলনে যাবে সাংবাদিকরা।

মানববন্ধনে সাংবাদিকরা, স্বাস্থ্য মন্ত্রী , স্বাস্থ্য সচিবের পদত্যাগ দাবী করে সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে নির্যাতনকারীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার দাবী জানান। এছাড়া বিচার বিভাগীয় তদন্ত করে দোষিদের দৃষ্টান্তমুলক শ্বাস্তির দাবী করেন লালপুরের সাংবাদিকরা। আগামীকাল রোজিনা ইসলামের জামিন শুনানীতে জামিন না দেওয়া হলে শনিবার থেকে বৃহত্তর কর্মসূচীর হুশিয়ারী দেওয়া হয়।