সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে হয়রানির প্রতিবাদে সিলেটে বিক্ষোভ

0
28

রুবেল আহমদ সিলেট থেকে:

ঢাকায় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে ঘুষ, দুর্নীতি ও অনিয়ম নিয়ে সংবাদ করায় দৈনিক প্রথম আলোর সাংবাদিককে ৫ ঘন্টা আটকে রেখে হেনস্তার প্রতিবাদ জানিয়েছে সিলেটের সাংবাদিকরা।

মঙ্গলবার দুপুরে সিলেট কেন্দ্রিয় শহীদ মিনারে তাৎক্ষণিক অবস্থান কর্মসূচি পালনের মাধ্যমে তারা এই আতংক জাগানিয়া ঘটনার প্রতিবাদ জানান।

ইলেকট্রনিক মিডিয়া জার্নালিস্ট এসোসিয়েসন (ইমজা) সিলেটের আয়োজনে ও ইমজার সাধারণ সম্পাদক আনিস রহমানের পরিচালনায় ও সিনিয়র সহ সভাপতি মঈন উদ্দিন মনজুর সভাপতিত্বে সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- সিনিয়র সাংবাদিক ইকরামুল কবির, আব্দুর রশীদ রেনু, সিলেট ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েসনের সভাপতি শেখ আশরাফুল আলম নাসির, সিলেট টিভি ক্যামেরা জার্নালিস্ট এসোসিয়েসনের সভাপতি দ্বিগেণ সিংহ, সাধারণ সম্পাদক ইকবাল মুন্সি, জেলা প্রেসক্লাবের সহ সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ রাসেল, স্পোর্টস জার্নালিস্ট এসোসিয়েসনের সাধারণ সম্পাদক সাদূকুর রহমান সাকি, ইমজার সাবেক সভাপতি কামকামুর রাজ্জাক রুনু, মঈনুল হক বুলবুল, মাহবুবুর রহমান রিপন, সাবেক সাধারণ সম্পাদক সজল ছত্রী, বাংলা টিভির এস আলম আলমগীর, ডিবিসির প্রত্যুষ তালুকদার, চ্যানেল টুয়েন্টিফোরের গোলজার আহমদ, এসএটিভির শ্যামানন্দ শ্যামল, আবু বকর আলামিন, নিউজ টুয়েন্টিফোর এর ক্যামেরাপার্সন শফি আহমেদ, ইন্ডিপেন্ডেন্ট টেলিভিশনের গোপাল বর্ধন, মাধব কর্মকার, যমুনা টিভির নিরানন্দ পাল, মাঈদুল রাসেল, সোহাগ যাদু, এটিএন নিউজের অনিল পাল, চ্যানেল টুয়েন্টিফোরের দীপক বৈদ্য, ডিবিরি হাসান শিকদার সেলিম, প্রথম আলোর আনিস মাহমুদ, মানাউবী শুভ প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, একজন জেষ্ঠ্য সাংবাদিককে ৬ ঘন্টা সচিবালয়ের মতো জায়গায় আটকে রেখে তার ওপর চুরির মামলা দায়েরের ঘটনায় প্রমাণ হয় দুর্নীতিবাজ আমলারা আর সরকারের নিয়ন্ত্রণে নেই। তারা দেশ, জাতি ও সরকারের সাথে প্রতারণা করছে। কিন্তু ঘটনার দীর্ঘ সময় অতিক্রান্ত হলেও সরকারের তরফ থেকে কোনো উদ্যোগ না দেখে হতাশ সাংবাদিক সমাজ। স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন ওঠছে সরকারের একটি অংশও এই দুর্নীতির সাথে জড়িত কি না। তারা গণমাধ্যমকে নিজেদের প্রতিপক্ষ হিসেবে প্রমাণ করতে চায়। মূলত তারা সরকারকেই বিভ্রান্ত ও অধপতনের দিকে নিয়ে যাচ্ছে।বক্তারা সরকারের কাছে অবিলম্বে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়সহ সকল দপ্তরের ভয়াবহ দুর্নীতির বিরুদ্ধে ব্যবস্থাগ্রহণ এবং রোজিনা ইসলামসহ সকল সংবাদকর্মীর নিরাপত্তা দাবি করেন।