সিরাজগঞ্জে চৌহালীর খাষকাউলিয়া ইউনিয়নের উদ্যোক্তার বিরুদ্ধে জন্মনিবন্ধনে অতিরিক্ত অর্থ আদায়ের অভিযোগ।

0
19

সেলিম রেজা সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি

সিরাজগঞ্জের চৌহালীতে খাষকাউলিয়া ইউনিয়নের উদ্যোক্তার বিরুদ্ধে জন্মনিবন্ধনে অতিরিক্ত ৫/৬ শত টাকা আদায়ের অভিযোগ উঠেছে। জানাগেছে,ওই ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তা মোঃ সিদ্দিক হোসেনের বিরুদ্ধে জন্মনিবন্ধন কার্ড করতে অতিরিক্ত অর্থ আদায়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে, ইউনিয়ন কার্যালয় থেকে গিয়ে জোতপাড়া বাজারে গিয়ে দেখা যায়, শিক্ষার্থীসহ তাদের অনেক অভিভাবকের ভিড়।
জন্মনিবন্ধন নিতে আসা বেশ কিছু অভিভাবকগন ক্ষোভ প্রকাশ করে জানান, কার্ড দেয়ার আগেই রশিদ ছাড়া ৫ শত টাকা করে তাদের কাছ থেকে নেয়া হয়েছে, এ ছাড়াও আরো অনেকের কাছ থেকে এ ভাবে অতিরিক্ত অর্থ আদায় করা হয়েছে বলে তারা জানান।
জনতা স্কুলের সহকারী শিক্ষক গোলাম মোস্তাফা জানান , আমার স্কুলের শিক্ষার্থী রেজাউল , শামীম , সজীব ও জিয়াসমিনের জন্মনিবন্ধনের সংশোধেনর জন্য তাদের কাছ থেকে ৫ শত টাকা করে জমা নিয়েছেন ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তা মোঃ সিদ্দিক হোসেন । পরে জন্মনিবন্ধনের কার্ড দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে এবং কার্ড নেওয়ার সময় আরো কিছু অর্থ লাগতে পারে বলে জানান,
বেবিস্ট্যন্ডনের দোকানদার আব্দুল মালেক জানান, স্কুলের কি একটা কাজের জন্য জন্মনিবন্ধন কার্ড লাগবে । আমি আমার বড় ছেলের জন্য জন্মনিবন্ধনের কার্ডে জন্য সিদ্দিকের কাছে গেলে ৫ শত টাকা জমা দিয়েছি। কিন্তু কোন প্রকার রশিদ দেয়নি।
মিয়া পাড়ার আলাউদ্দিন জানান, নাম সংশোধনের জন্য ৫শত টাকা নেয়া হয়েছে। ডিজিটাল সেন্টারে উদ্যোক্তা সিদ্দিক হোসেন শুধু জন্মনিবন্ধন কাজ ছাড়া আর কোন কিছু করে না।
জন্মনিবন্ধনে অতিরিক্ত টাকা নেওয়ার বিষয়ে ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তা মোঃ সিদ্দিক হোসেন মুঠোফোনে ফোন দিলে তিনি অতিরিক্ত ফ্রি নেওয়ার বিষয়ে অস্বীকার করেছে,
খাষকাউলিয়া ইউপি চেয়ারম্যান শহিদুর রহমান জানান, এই জন্মনিবন্ধন কার্ডের ব্যাপারে আমার কাছে বেশি কিছু জনসাধারণ মৌখিক অভিযোগ করেছে। অতিরিক্ত অর্থ আদায় করে হরিলুট করছে। যা আইনে বহিভুর্ত কাজ,
ইউনিয়নের অতিরিক্ত সচিব খায়রুল ইসলাম সবুজ বলেন, কিছু লোকের কাছ থেকে মৌখিক ভাবে অভিযোগ পেয়েছি। আইনের বাইরে কোন কাজ করা যাবে না। আমি অভিযোগ শোনার পর নিজে তদারকি করছি, কোন প্রকার জন্মনিবন্ধন কার্ডে বেশি টাকা নিয়া যাবে না।