সিলেট জেলা প্রেসক্লাবের অবস্থান কর্মসূচিতে বক্তারা

0
39

‘রোজিনার নিঃশর্ত মুক্তি ও
নির্যাতনকারীদের শাস্তি চাই’

রুবেল আহমদ সিলেট থেকে:

প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক ও কারাবন্দী রোজিনা ইসলামের নিঃশর্ত মুক্তি, এবং তাঁকে নির্যাতনকারী কর্মকর্তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছেন সাংবাদিকনেতারা। তাঁরা রোজিনা ইসলামের বিরুদ্ধে অফিশিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্টে করা সাজানো মামলা প্রত্যাহারও চেয়েছেন।
অনুসন্ধানী সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সেবা বিভাগে ঘন্টার পর ঘন্টা আটকে রেখে নির্যাতন, সাজানো মামলা দিয়ে জেলে পাঠানোর প্রতিবাদ ও তাঁর নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে সিলেট জেলা প্রেসক্লাব আয়োজিত অবস্থান কর্মসূচি থেকে এ দাবি জানানো হয়।
বুধবার (১৯ মে) বিকেল ৩টা থেকে ৪টা পর্যন্ত চলা সিলেটের সিভিল সার্জন অফিসের সামনে অবস্থান কর্মসূচিতে সভাপতিত্ব করেন সিলেট জেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি আজাদের সভাপতিত্বে ও ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ছামির মাহমুদের সঞ্চালনায় শুরুতে কর্মসূচির বিস্তারিত তুলে ধরে বক্তব্য দেন সংগঠনের সহসভাপতি-১ মঈন উদ্দিন।
কর্মসূচিতে সংহতি জানিয়ে বক্তব্য দেন সিলেট সাংবাদিক ইউনিয়নের আহবায়ক লিয়াকত শাহ ফরিদী, সিলেট সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর সাংবাদিক নেতা রেজওয়ান আহমদ, সিলেট জেলা প্রেসক্লাবের সহসভাপতি-২ এস. সুটন সিংহ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক শাহ দিদার আলম চৌধুরী নবেল, বাংলাদেশ ফটো জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশন সিলেট বিভাগীয় কমিটির সভাপতি শেখ আশরাফুল আলম নাসির, ইলেকট্রনিক মিডিয়া জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন-ইমজা সিলেটের সদস্য, চ্যানেল ২৪ এর স্টাফ রিপোর্টার গোলজার আহমদ ও এটিএন বাংলা ইউকে সিলেট বিভাগীয় প্রতিনিধি শফিকুল ইসলাম শফি প্রমুখ।
অবস্থান কর্মসূচি চলাকালে বক্তারা বলেন, রোজিনা ইসলাম স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অনিয়ম-দুর্নীতির সংবাদ প্রকাশ করায় আজ কারান্তরিণ হতে হয়েছে। স্বাধীন ও অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা আজ জলাঞ্জলির পথে। দুর্নীতিবাজদের বিচার না করে একজন অনুসন্ধানী প্রতিবেদককে চুরির মামলা দিয়ে সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণœ করা হয়েছে।
বক্তারা বলেন, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় নিয়ে রোজিনা ইসলামের করা সকল প্রতিবেদনকে গুরুত্ব দিয়ে দুর্নীতিতে জড়িত কর্মকর্তাদের শাস্তির আওতায় আনতে হবে। বক্তরা জানান, অবিলম্বে রোজিনা ইসলামকে মুক্তি না দিলে সিলেটের সাংবাদিকরা কঠোর কর্মসূচি দিতে বাধ্য হবেন।
সভাপতির বক্তব্যে আল আজাদ বলেন, সরকারের সকল ভালো কাজকে প্রশ্নবিদ্ধ করছে দুর্নীতিবাজ আমলারা। এর একটি জলন্ত প্রমান রোজিনা ইসলাম। দুর্নীতিবাজদের মুখোশ উন্মুচন করায় একজন অনুসন্ধানী প্রতিবেদক আজ কারান্তরিণ। তিনি রোজিনা ইসলামের মুক্তি চেয়ে যতো দ্রুত সম্ভব স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দুর্নীতিবাজ, কালো টাকার মালিকদের আইনের আওতায় আনার দাবি জানান।
সিলেট জেলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ছামির মাহমুদ রোজিনা ইসলামকে কারাবন্দী করার ঘটনাকে মুক্ত গণমাধ্যমের ওপর হস্তক্ষেপ উল্লেখ করে বলেন, তাঁর বিরুদ্ধে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের আনা অভিযোগ হাস্যকর, অবান্তর ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। আমরা রোজিনার নিঃশর্ত মুক্তি চাই। পাশাপাশি মামলা প্রত্যাহার করে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তাদের শাস্তি দিতে হবে।
অবস্থান কর্মূসূচিতে আরও উপস্থিত ছিলেন, সিনিয়র মোহাম্মদ মহসীন, ফয়সল আহমদ বাবলু, মতিউল বারী চৌধুরী, উজ্জ্বল মেহেদী, মামুন হাসান, শাব্বীর আহমদ ফয়েজ, সাদিকুর রহমান সাকী, এ এইচ আরিফ, সৈয়দ রাসেল, সুমনকুমার দাশ, আনিস মাহমুদ, সজল ঘোষ, এসএম রফিকুল ইসলাম সুজন, মোস্তাফিজুর রহমান রোমান, রবি কিরণ সিংহ , শংকর দাস, কাইয়ুম আল রনি, মো. ওলিউর রহমান, মো. নুরুল হক শিপু, মৃণাল কান্তি দাস, আশরাফ চৌধুরী রাজু, মো. শাহীন আহমদ, শেখ মো. লুৎফুর রহমান,মো. সুলতান আহমদ, ইয়াহ্ইয়া মারুফ, রাশেদুল হোসেন সোয়েব, মো. একরাম হোসেন, রাহুল তালুকদার পাপ্পু, দিব্য জ্যোতি সী, মিঠু দাস জয়, মামুন হোসেন, ভবরঞ্জন মৈত্র বাপ্পা, আতিকুর রহমান নগরী, মোখলেছুর রহমান, সোহাগ আহমদ প্রমুখ।