হাফছড়ি’র দূর্গম বৈদ্যপাড়া এলাকায় প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রতিষ্টা করলেন- চাইথোয়াই চৌধুরী।

0
37

জসিম উদ্দিন জয়নাল,পার্বত্যাঞ্চল প্রতিনিধি:

পার্বত্য খাগড়াছড়ি জেলার গুইমারা উপজেলার হাফছড়ি ইউনিয়নের দূর্গম এলাকায় ব্যক্তিগত উদ্যােগে বৈদ্য পাড়া বে-সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রতিষ্টা করেছেন হাফছড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান চাইথোয়াই চৌধুরী।

এলাকাবাসী জানান,হাফছড়ি ইউনিয়ন পরিষদের দূর্গম পাহাড়ী জনপদ ৫নং ওয়ার্ডের ৫টি গ্রাম নিয়ে এই ওয়ার্ড এখানের কোমলমতি শিশুদের প্রাথমিক শিক্ষার জন্য কোন প্রাথমিক বিদ্যালয় নেই বৈদ্যপাড়া, নাইক্কাপাড়া,মগবৈদ্য পাড়া, চাকমা বৈদ্য পাড়া,তাইন্দং পাড়া এই পাঁচটি গ্রামের ছোট্র ছোট্র শিশুরা প্রাথমিক বিদ্যালয় যেতে হলে পাহাড়ী দূর্গম আঁকা বাঁকা রাস্তা জঙ্গলে ঘেরা পথ মাড়ি দিয়ে ৩কি:মি:দূরে বড়তলি পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যেতে হতো অনেক কষ্ট করে।
বিষয়টি একদিন হাফছড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান চাইথোয়াই চৌধুরীকে অবগত করলে তিনি সরোজমিনে গিয়ে এলাকা বাসীদের সাথে আলোচনা করেন কিভাবে দূর্গম এলাকার ছোট্র ছোট্র শিক্ষাথীদের জন্য একটি বে-সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রতিষ্টা করা যায়
আলোচনা করে পরে বৈদ্য পাড়া বে-সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রতিষ্টা করেন।

হাফছড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান চাইথোয়াই চৌধুরী বলেন,দুর্গম এলাকার অবহেলিত পাঁচ গ্রামের প্রায় ৩০০ পরিবারের প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পড়ুয়া শতাধিক কোমলমতি শিক্ষার্থী তিন কিলোমিটার দূরে দুর্গম পাহাড়ী পথ মাড়ি দিয়ে পাঁয়ে হেঁটে বড়তলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যেতে হয় পাঠদানের জন্য। শিশুদের কষ্ট লাঘবের জন্য। আমি নির্বাচিত হওয়ার পর ২০১৮ সালে ব্যক্তিগত উদ্যােগে নিজস্ব অর্থায়নে পাড়াবাসীদের সহযোগিতায় বৈদ্য পাড়া বে-সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবনের জন্য একটি জায়গা নির্ধারন করা হয় পরে সেখানে একটি টিনসেড ভেড়ার ঘর নির্মাণ করে দিই।

বর্তমানে প্রায় শতাধিক শিক্ষার্থী রয়েছে এখানে। শিক্ষকরা স্থানীয় ব্যবসাসহ অন্যান্য কাজের সঙ্গে সম্পৃক্ত। অনেকটা স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে চারজন শিক্ষকের মাধ্যমে বিদ্যালয়টি পরিচালিত হচ্ছে সরকারি সহযোগিতায় বিদ্যালয়টি জাতীয় করণ হলে বৈদ্যপাড়া বে-সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টির মানসম্মত সু-শিক্ষা সুনিশ্চিত হবে বলে মনে করেন হাফছড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান চাইথোয়াই চৌধুরী।