১নং মাধবখালি ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলামের বিরুদ্ধে সরকারি ঘরের দুর্নীতি ও অনিয়ম

0
222

ক্রাইম রিপোর্টার : পটুয়াখালী জেলার মির্জাগঞ্জ উপজেলা ১নং মাধবখালি ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলামের বিরুদ্ধে সরকারি ঘরের দুর্নীতি ও অনিয়ম প্রসঙ্গে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে একই ইউনিয়নের ইউপি সদস্য মোঃ জামাল মেম্বার বলেন, ৬নং ওয়ার্ড এর হিরন আকন এক জন অসহায় বেকতি ও নিরক্ষর মানুষ তাহার কোন বসবাস করার স্থান না থাকায় চেয়ারম্যান এর কাছে একটি ।মজিব বর্ষের ঘরের আবেদন করেন । সাথে চেয়ারম্যান সাহেব খরচ ব্যাবত ৩৫০০০ হাজার টাকা নেয় । কিছু দিন পরে । হিরন আকনকে নিয়ে ব্যাংকে একাউন্ট্ খুলে । এর পর চেয়ারম্যান সাহেব আবার ৮০০০০ হাজার টাকা পুনরায় দাবি করেন । হিরন আকন ওই টাকা না দিতে পারায় । ঘর খানা তার কপালে জুটে নাই ।ঘর খানা অন্য লোকদের কাছে টাকা নিয়ে বিক্রি করেন । তাই হিরন আকন ইউ এনও স্যারের কাছে একটি লিখিত অভিযোগ করেন । বিভিন্ন গন মাধ্যমে প্রচার হয় । কিন্তু চেয়ারম্যান এর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি । বরং চেয়ারম্যান সাহেব খুপতো হয়ে হিরন আকন এর দশ টাকা কেজি নায্য মুলের চাল এর কাট কাটিয়া দেয় । এবারে আমি জামাল মেম্বার কথা বলায় আমার নায্য হিস্যা থেকে বঞ্চিত করেন । সে হেলেনা জাহাঙ্গীর এর মতন কোন আইনের তোয়াক্কা করে না । এর একমাত্র কারণ ।ইউনিয়ন এর সাধারণ সম্পাদক হালিম মোল্লা পা কেটে নেওয়া চার জন ওয়ার্ড সভাপতি মারধর এর পক্ষে মহরি মামলা নেওয়ার কারনে মহরিকে মারধর ।এই মামলায় এক দিন হাজতি হয়ে আবার ভিরের মত বের হওয়া । পাঁচ জন মেম্বার মারধর করা । এত কিছু করে টিকে থাকার একমাত্র কারণ নৌকার চেয়ারম্যান হয়ে উপজেলা নির্বাচনে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ।। নৌকার পিছনে না থেকে সতান্ত প্রার্থীর পিছনে কাজ করা এবং এই নৌকা সেই নৌকা না বলে ছোলোগান দেওয়া । তাই বিএনপি নির্বাচনে না এসে সতান্ত প্রার্থী র পিছনে থেকে জয়জুক্ত করা। এরি কারনে আমরা আওয়ামী লীগ ছাএলীগ শ্রমিক লীগের যুবলীগ । ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলাম বিএনপি জামায়াত জোট নিয়ে নির্যাতন চালাচ্ছে ।।

জামাল মেম্বার আরও বলেন, আমারা কোন সুবিচার না পাওয়ার কারণে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আপনার প্রতি সুদিষ্টি রাখার অনুরোধ ও বিচারের যোর দাবি জানাচ্ছি ।

নিবেদক,,
মোঃ জামাল মেম্বার ।
৭নং ওয়ার্ড ১নং মাধবখালি ইউনিয়ন পরিষদ ।
মির্জাগঞ্জ, পটুয়াখালী ।
০১৩১০৮৮৪১২৫